সর্বশেষ
সোমবার ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৯ নভেম্বর ২০১৮

ঘরের শোভা অ্যাকুরিয়াম

রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০১৭

2030784306_1486285709.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে অ্যাকুরিয়াম এখন অপরিহার্য ব্যাপার। সৌখিন মানুষের প্রথম পছন্দও বটে। এক সময় উচ্চ ও উচ্চ-মধ্যবিত্ত পরিবারের ড্রয়িং রুমে দেখা যেত অ্যাকুরিয়াম। কিন্তু এখন তা সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের ঘরে হরহামেশাই দেখা মেলে।

আমাদের শহর কেন্দ্রিক জীবনধারায় ড্রইং রুমে একটি অ্যাকুরিয়াম সৌন্দর্য্য বাড়িয়ে তোলে নিঃসন্দেহে। ড্রয়িং রুমে ভারী আসবাবপত্রের সঙ্গে একটি অ্যাকুরিয়াম হলে মন্দ হয় না। কিন্তু এই সৌখিনতার পাশাপাশি চলে আসে সেই জিনিসটার প্রতি যত্ন এবং রক্ষনাবেক্ষন।

আর মন খারাপের দিনে রঙিন মাছের সঙ্গে একটু সময় কাটালে মন ভালো না হয়ে পারেই না। ঘরের কোণে অ্যাকুরিয়ামের জীবন্ত বাহারী রং এর মাছ গুলো যখন সাঁতার কাটে তখন দেখতে ভালই লাগে। বাহারি বিভিন্ন মাছ কিনে এনে ঘরের এক কোণে বড়, ছোট, মুখ খোলা গোলাকার অ্যাকুরিয়াম বা বন্ধ ঘরের মতো দেখতে অ্যাকুরিয়াম, এখন অনেকেই মাছ পালন করার জন্য কিনে থাকেন, এটা তার শৌখিনতার পরিচায়কও বটে।

দর-দাম:
আগে যেখানে প্রতিদিন আগে যেখানে ১/২ অ্যাকুরিয়াম বিক্রি হতো, এখন গড়ে ৪/৫ টি অ্যাকুরিয়াম বিক্রি হয়। এছাড়া অ্যাকুরিয়ামের সঙ্গে সম্পৃক্ত জিনিসের বিক্রিও বৃদ্ধি পেয়েছে। আকার-আকৃতি ভেদে এর দামের রয়েছে তারতম্য। আপনি যদি চারকোণা অ্যাকুরিয়াম কিনতে চান তাহলে আপনাকে গুণতে হবে ৩৫০-১০,০০০ টাকা। আর যদি গোল আকৃতির অ্যাকুরিয়াম কিনতে চান তাহলে দাম পরবে ৮০-৩৫০০ টাকা পর্যন্ত। পছন্দ মতো বিভিন্ন আকার-আকৃতির অ্যাকুরিয়াম অর্ডার দিয়ে ও তৈরি করে নেওয়া যায়।



অ্যাকুরিয়ামের মাছ:
আমাদের দেশে অ্যাকুরিয়ামে রাখার মত অনেক মাছ পাওয়া যায়। যেমন: সিলভার আরোয়ানা, গোল্ডফিশ, এঞ্জেল, শার্ক, টাইগার বার্ব, ক্যাট ফিশ, ঘোষ্ট ফিশ, মলি, গাপ্পি, ফাইটার, চিকরেট, টাইগার কৈ কার্প, ব্ল্যাক মুর, সোটটেল, কৈকার, সাকার সহ আরো অনেক রকম মাছ।

মাছের মূল্য:
অ্যাকুরিয়ামে যে সকল মাছ রাখা যায়, তার মধ্যে সিলভার আরোয়ানা। যার দাম জোড়া ৬০,০০০-১,২০,০০০। গোল্ড ফিস জোড়া ৬০-৩০০ টাকা। ব্ল্যাক গোস্ট নাইফ ফিস ২৫০-৩০০ টাকা। অ্যাঞ্জেল ৮০-১০০ টাকা। কালার কমব্যাট জোড়া ৮০-৩০০ টাকা। এল ফিস, ব্ল্যাক মুর, পার্ল গাউরামি প্রত্যেকটির মূল্য ১০০-২০০ টাকা (জোড়া), ফাইটার ২৫০-৩০০ টাকা ।এছাড়াও পছন্দমতো নানা দামের মাছ কিনতে পাওয়া যায়।



অ্যাকুরিয়ামের মাছ যেখানে পাওয়া যাবে:
কাঁটাবনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মার্কেট অ্যাকুরিয়ামের জন্য বিশেষভাবে পরিচিত। অ্যাকুরিয়ামে মাছ পুষতে যা যা দরকার তার সবই পাওয়া যায় এখানে। এর মধ্যে আছে অ্যাকুরিয়াম বক্স, মাছ, খাবার, ওষুধ প্রভৃতি। ঢাকার নিউমার্কেট, বনানীসহ বিভিন্ন এলাকায় বিচ্ছিন্নভাবে কিছু অ্যাকুরিয়াম-সামগ্রীর দোকান আছে।

সতর্কতা:
অ্যাকুরিয়ামের  পানি সপ্তাহে অন্তত দুইবার বদলাতে হবে। এবং সপ্তাহে একবার পুরো একুরিয়াম পরিষ্কার করতে হবে। এছাড়াও কোন মাছ রোগাক্রান্ত হলে তাকে দ্রুত সরিয়ে ফেলা উচিত। এতে বাকি মাছের মধ্যে রোগ ছড়াবে না।

* অ্যাকুরিয়ামের অক্সিজেন পাম্পার বিদ্যুতের সাহায্যে চলে। তাই ভেজা হাতে পাম্পার ধরবে না।
* অনেক সময় আরথিংয়ের কারণে পানিতে বিদ্যুৎ চলে যায়, তাই সুইচ অফ না করে পানিতে হাত দেয়া যাবে না।
* একটি কুনুই পর্যন্ত রাবারের গ্লাভস কিনে নিন। এতে করে পানি পরিষ্কার করলেও, হাতের ত্বক ভালো থাকবে।

ঢাকা, রবিবার, ফেব্রুয়ারী ৫, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এইচ এই লেখাটি ১৮১৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন