সর্বশেষ
রবিবার ৪ঠা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৮ নভেম্বর ২০১৮

অানাড়ি প্রেসিডেন্টের অালোচিত ১০০ দিন

শনিবার, এপ্রিল ২২, ২০১৭

1444789743_1492862698.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
দেখতে দেখতেই চলে গেলো স্রোতের বিপরীতে চলা রাজনীতিতে আনাড়ি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম ১০০ দিন। কেমন গেলো এই দিনগুলি?

প্রশাসনে নিজের পছন্দের লোকদের নিয়োগ দিতে ব্যাপক বেগ পেতে হয়েছে এই নতুন চালকের। পাবারই কথা, কারণ খুঁজে খুঁজে সবচেয়ে বিতর্কিত ব্যাক্তিগুলিকে বেছে নিয়েছেন এবং নিয়োগ দিয়েছেন কারো কোনো কথার তোয়াক্কা না করে।

কয়েকটি নির্বাহী আদেশ, তার কয়েকটি আবার কোর্টে স্থগিত হওয়া, এটাই ছিলো প্রথম কয়েকদিনের শাসনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা। বিশেষ করে ট্রাভেল ব্যান/মুসলিম ব্যানের কারণে সারা দেশে রীতিমত প্রতিবাদের ঝড় বয়ে যায়। শেষে কোর্টের আদেশে স্থগিত হয়ে যায় দুটো আদেশই।

তবে নির্বাহী আদেশ স্থগিত হলেও মৌখিক আদেশগুলিকে তো আর কোর্টের আদেশে স্থগিত করা সম্ভব হয়না, তাই চলছে সর্বক্ষেত্রে অলিখিত কড়াকড়ি। আনডকুমেন্টেড অভিবাসীদের ধরপাকড় ছিলো চোখে পড়ার মত।

সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ঘটনা ছিলো নির্বাচনের পূর্বে রাশিয়ার সাথে যোগাযোগের অভিযোগ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা। প্রধান সামরিক উপদেষ্টাকে এই অভিযোগ কাঁধে নিয়ে চলেও যেতে হয়েছে। এতেও এই বিতর্কের লাগাম টানতে না পেরে জনগনের ফোকাস ভিন্নদিকে নিতে ঘটতে থাকে একের পর এক ভয়ঙ্কর ঘটনাবলী।

প্রথমে এক মিথ্যে অভিযোগ দিয়ে চেষ্টা করা হয় ঘটনা ধামাচাপা দিতে। বলা হয় আগের সরকার অবৈধ্যভাবে তার ফোনে আড়ি পেতেছিলো। সিনেট সেটার কোন প্রমান পায়নি বিধায় এটা ধোপে টেকেনি। এ যাত্রায় ফেইল করার পর শুরু হয় ভয়ঙ্কর খেলা। চোখ ফেলা হয় বহির্বিশ্বের রাজনীতিতে। সিরিয়ায় অমানবিক আক্রমণের মধ্যে দিয়ে শুরু হয় সেই ভয়ঙ্কর খেলা।

এরপর সকল আইন কানুনকে বৃদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে অযাচিত ভাবে সবচেয়ে বড় অপারমানবিক বোমাটি মেরে বসে আফগানিস্তানে। অবস্থাদৃস্টে অনেক রাজনৈতিক বোদ্ধা আশংকা প্রকাশ করছেন, ঘটনা ধামাচাপা দেবার পাগলামি, সাথে বিশ্ব রাজনীতিতে পরিকল্পনাহীন খেলা শেষে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের পটভূমি তেরী না করে।

ভিন্নধারার রাজনীতির দর্শন দিয়ে কট্টর রিপাবলিকানদের মন জয় করে ভোটের খেলায় বাজিমাত করে সবাইকে চমকে দিয়ে ক্ষমতায় এসেছেন এই নব্য রাজনীতিক। তবে ভিন্নতাটা পজেটিভলি প্রয়োগ করলে দেশের জনগনই শুধু না গোটা বিশ্বের মানুষই পাবে এক ভিন্নতার স্বাদ। সেটাই যেনো হয়। এতো মাত্র একশ দিন। সবেতো শুরু, আর কোন চমকের দরকার নেই। এবার সবাই চায় ভিন্নধর্মী এক অন্যরকম শাসন, তবে পজেটিভলি, যা সর্বস্তরের জনগনের সত্যিকার কল্যাণ বয়ে আনবে। শুভ হউক আগামীর পথ চলা মিস্টার প্রেসিডেন্ট!

লেখক: মাহমুদুল খান (আপেল), মিশিগান, USA থেকে

ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ২২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ১০৭৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন