সর্বশেষ
সোমবার ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৯ নভেম্বর ২০১৮

নারীর দেহে এইচআইভি ছড়ানোই ছিল তার কাজ

রবিবার, অক্টোবর ২৯, ২০১৭

881045438_1509277432.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
এইচআইভিতে আক্রান্ত ইটালির এক ব্যক্তিকে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে সে দেশের আদালত।

যৌন সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে সে ব্যক্তি ইচ্ছাকৃত ভাবে ৩০জন নারীর দেহে এইচআইভি ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটিয়েছেন।

৩৩ বছর বয়সী সে ব্যক্তির নাম ভ্যালেন্তিনো টাল্লুতো এবং তিনি পেশায় একজন হিসাবরক্ষক।

দশ বছর আগে তিনি যখন এইচআইভিতে আক্রান্ত হবার বিষয়টি জানতে পারেন, তখন তিনি ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন নারীদের প্রলুব্ধ করে তাদের সাথে পরিচয় এবং পরে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতেন। এর উদ্দেশ্য ছিল নারীদের দেহে এইচআইভির সংক্রমণ ঘটানো।

তিনি বলেন, ২০০৬ সালে তার দেহে এইচআইভি ভাইরাস সনাক্ত হবার পরে ৫৩ জন নারীর সাথে তিনি যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন এবং এদের মধ্যে একজনের বয়স ছিল ১৪ বছর।

টাল্লুতোর আইনজীবী বলেছেন, তার মক্কেলের আচরণ 'অপরিণত' ছিল কিন্তু এটি 'ইচ্ছাকৃত' ছিল না।

টাল্লুতোর সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করে যেসব নারী এইচআইভিতে আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের সাথে যৌন সম্পর্ক করার জন্য আরো চারজন পুরুষের দেহে এইচআইভি সংক্রমণ হয়েছে। এদের মধ্য থেকে একজন নারীর সন্তানও এইচআইভিতে আক্রান্ত হয়েছে।

টাল্লুতোর বয়স যখন চার বছর তখন তার মা এইচআইভি সংক্রমণে মারা যান। তিনি আদালতে বলেন, কোন নারীর দেহে ইচ্ছাকৃত ভাবে এইচআইভি সংক্রমণের ইচ্ছা যদি থাকতো তাহলে তিনি তাদের সাথে সত্যিকারের সম্পর্কে জড়াতেন না।

আদালতে তিনি বলেন, "অনেক মেয়ে আমার পরিবার এবং বন্ধুদের সম্পর্কে জানে। তারা বলছে, আমি অধিক সংখ্যক নারীর দেহে এইচআইভি সংক্রমণ ছড়িয়ে দিতে চেয়েছি। সেটা যদি সত্যি হতো, তাহলে আমি তাদের সাথে সত্যিকারের সম্পর্কে না জড়িয়ে পানশালায় খুব সাধারণভাবে যৌন সম্পর্ক করতে পারতাম।"

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, রায় ঘোষণার সময় টাল্লুতো কাঁদছিলেন। সরকারী কৌসুলিরা তার যাবজ্জীবন সাজা চাইলে আদালত সেটি না দিয়ে ২৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে।

ঢাকা, রবিবার, অক্টোবর ২৯, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জেড ইউ এই লেখাটি ১৬৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন