সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২রা মাঘ ১৪২৪ | ১৬ জানুয়ারি ২০১৮

বিধবার মাছের খামারে দুর্বৃত্তের বিষ

বৃহঃস্পতিবার ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৭

40691918_1513254870.jpg
সাভার প্রতিনিধি :
ঢাকার ধামরাই এলাকার যাদবপুরের আমসিমুর গ্রামে থাকেন নুন নাহার বেগম। স্বামী গত হয়েছেন বেশ কয়েক বছর আগে। সন্তানদের নিয়ে কোনরকম টানাটানির সংসার তার। এর মধ্যে সমিতি থেকে ঋণ নিয়ে বাড়ির পাশে খামারে মাছ চাষ করেছেন।

ধীরে ধীরে বড় হচ্ছিল থামারের মাছগুলো, সেই সাথে বাড়ছিল তার স্বপ্নের উচ্চতা। তবে তার সেই মাঝ স্বপ্নে হানা দিয়েছে  দুর্বৃত্ত। গভীর রাতে তার সেই খামারে বিষ ঢেলে সব মাছ মেরে ফেলে দুর্বৃত্তরা।

গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে একদল দুর্বৃত্ত নুন নাহারের মাছের খামারে বিষ ঢেলে মাছ মেরে ফেলে। আজ সকালে ঘুম থেকে ওঠে তিনি পুরো খামার জুড়ে মাছ মরে ভেসে উঠতে দেখেন। তবে এ ঘটনায় অভিযোগের তীর স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে।

ওই বিধবার ছেলে আলীম জানান, রাতে খামারে মাছগুলো পানির উপরে ভেসে উঠছিলো। পরে সকালে দেখি খামারে সব মাছ মরে ভেসে উঠেছে। শুধু তাই নয় পানিতে থাকা অন্যান্য জলজ প্রাণীও মরে ভেসে ওঠে।

তার অভিযোগ, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে স্থানীয় যাদবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মিজানুর রহমান মিজুর লোকজন বিষ প্রয়োগ করে মাছ মেরেছে। কারণ প্রায় ৬ মাস আগে চেয়ারম্যান খামারের জমিটি তার আত্মীয়ের বলে দাবি করে এবং সেখানে মাছ চাষ করতে নিষেধ করেন। হয়ত সে কারণে তিনি এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে মনে করেন আলীম।

তবে এমন অভিযোগ নাকচ করে চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজু জানান, এই ঘটনার সঙ্গে আমি যুক্ত নই। তারা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিচ্ছে।

নুন নাহার জানান, এতিম ছেলে মেয়েদের নিয়ে খামারের আয় দিয়ে সংসার চালিয়ে আসছিলাম। এখন কিভাবে চলবো। আর ঋণের টাকাই বা কিভাবে পরিশোধ করবো। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান তিনি।

তার দাবি এতে তার প্রায় ৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার এস আই কামরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঢাকা, বৃহঃস্পতিবার ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস এ এই লেখাটি 60 বার পড়া হয়েছে