সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২রা মাঘ ১৪২৪ | ১৬ জানুয়ারি ২০১৮

দুইশ' বছরের ঐতিহ্য তারাশের রাধা গোবিন্দ মন্দির

মঙ্গলবার ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৭

2.jpg
সোহেল রানা সোহাগ, সিরাজগঞ্জ থেকে :

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় প্রায় ২'শ বছরের ঐতিহ্য নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মন্দির কেন্দ্রীয় রাধা গোবিন্দ মন্দির। মন্দিরটি আজও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পূজা-অর্চনা ও দেশি- বিদেশি পর্যটকদের পদচারণয় মুখরিত।

জানা যায়, তৎকালীন হিন্দু প্রধান তাড়াশের জমিদার বনওয়ারী লাল রায় বাহাদুর ১১০৫ বঙ্গাব্দে মন্দিরটি নির্মাণ করেন। এটি উপজেলা শহরের কেন্দ্রস্থলে তাড়াশ প্রেসক্লাব থেকে ১০০ গজ উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত। ২ একর ৬ শতক জায়গা জুড়ে গড়ে ওঠা মন্দিরটি দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মন্দির হিসেবে খ্যাত।

তাড়াশ উপজেলা সভাপতি তপন কুমার গোস্বামী জানান, চারকোণ ও দ্বিতল বিশিষ্ট মন্দিরটি দৈর্ঘ্য প্রায় ৩০০ ফুট, প্রস্থ প্রায় ১৮০ ফুট, উচ্চতা প্রায় ৬০ ফুট। এর অভ্যন্তরে রয়েছে বর্ণিল কারুকার্যে খচিত ২৫টি গোলাকৃতি স্তম্ভ। কালো পাথরের তৈরি পূজার বেদী।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মন্দিরের ভেতরে শোভা পাচ্ছে রাধা-গোবিন্দ, বাসুদেব, গৌর-নিতাই ও নারায়ণ শিলা মূর্তটি। কথিত আছে এ মন্দিরটির কারণে সারা বিশ্বের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে তাড়াশ 'গুপ্ত বৃন্দাবন' নামে খ্যাত। দর্শনীয় এই মন্দিরে পূজা দিয়ে ধর্মীয় তুষ্টি মেটান সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

তাড়াশ উপজেলা সনাতন সংস্থার সভাপতি সঞ্জিত কর্মকার ও সাধারণ সম্পাদক সনাতন দাশ জানান, প্রায় ২'শ বছরের পুরাতন এ মন্দিরটি আজও তার ঐতিহ্য ধরে রেখেছে। এখনো সপ্তাহব্যাপী ঝুলন উৎসব, দুগ্ধ জলস্নান উৎসব, দুর্গাপূজা, অনকুট, অষ্টপ্রহর, গোষ্ঠ যাত্রা, লক্ষ্মী ও সরস্বতী পূজা সহ নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে তীর্থস্থানে পরিণত হয় এ মন্দির।

তাড়াশ পূজা উদযাপন পরিষদের সম্পাদক অানন্দ কুমার ঘোষ বলেন, 'এখানে এক সময় ভারতবর্ষের বিখ্যাত মনীষী জগৎবন্ধু, মহানাম ব্রত ব্রহ্মচারী, নিগমানন্দ স্বামীজির মত মনীষীরা আসতেন। এখনো দেশ বিদেশের অসংখ্য পর্যটকদের আগমন ঘটে রাধা গোবিন্দ মন্দিরে।'

তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম ফেরদৌস ইসলাম জানান, কালের সাক্ষী মূল্যবান প্রত্নসম্পদ রাধা গোবিন্দ মন্দিরটি প্রশাসন ও পূজা উদযাপন কমিটি যৌথভাবে নিরাপত্তা, তত্ববধান ও রক্ষণাবেক্ষণ করে থাকেন।


ঢাকা, মঙ্গলবার ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি 499 বার পড়া হয়েছে