সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২রা মাঘ ১৪২৪ | ১৬ জানুয়ারি ২০১৮

সূরের মূর্ছনায় উৎসবের প্রথম রজনী

বুধবার ২৭শে ডিসেম্বর ২০১৭

4_1.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

সঙ্গীত অনুরাগীরা আরো একবার বিমোহিত হলেন শুদ্ধ সঙ্গীতের ধারায়। ষষ্টবারের মতো মঞ্চ আলোকিত করে শুরু হলো বেঙ্গল উচ্চাঙ্গ সংগীত উৎসব।

উৎসবের প্রথমদিনই মঞ্চ আলোকিত করে বেহালার সুর নিয়ে আসেন উপমহাদেশের গুণী সঙ্গীতজ্ঞ এল সুব্রামানিয়া। তার সাথে মৃদঙ্গে সঙ্গত করেন শ্রী রামামূর্তি ধুলিপালা। যুগল এই পরিবেশনায় যেন প্রাণ চঞ্চল্য তৈরি হয় পুরো আয়োজন জুড়ে।

বেহালার রেশ কাটতে না কাটতেই প্রথমবারের মতো রাজধানীবাসীকে অর্কেস্ট্রার অদ্ভুত মুর্ছূনায় বিমোহিত করে তোলে কাজাকিস্থানের অর্কেস্ট্রা দল আস্তানা সিম্ফনি ফেলহারমোনিক। পুরো ঘণ্টাও বেশি সময় যেন মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখে দর্শকদের।

এরপরেই আয়োজন করা হয় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের। উৎসবের উদ্বোধন করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, 'মনোজগতের বিকাশের জন্য শুদ্ধ সঙ্গীতের চেয়ে আর ভালো কিছু হতে পারে না।'

শুধু উপমহাদেশ নয় প্রাচ্যের গুণী সঙ্গীত গুরুদের শুদ্ধ পরিবেশনায় এই কদিন সুরচ্ছটা ছাড়াবে উৎসব। জায়গাটা নতুন হলেও এই সুর এই তাল এই ছন্দ আর এই আবহ মোটেও অপরিচিত নয় সঙ্গীত অনুরাগীদের কাছে। বরং অনেকটাই কাঙ্খিত ও প্রত্যাশিত। গেল পাঁচ বছর ধরেই শুদ্ধ এই সঙ্গীত উৎসবের আয়োজন করে আসছে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন।

গেল কয়েক বছর ঢাকার আর্মি স্টেডিয়ামে সঙ্গীত পিপাসুদের মিলনমেলা বসলেও এইবারই প্রথম এই আয়োজন হলো রাজধানীর ধানমন্ডির আবাহনী মাঠে। তবে উৎসব পরিবেশনায় রয়েছে ঠিক আগের সুরই।

রাতব্যাপী এই আয়োজনের আরো ছিলেন রাজরুপা চৌধুরী, বিদূষী পদ্মা তালওয়ালকরের মতো গুণি সঙ্গীত গুরুরা।


ঢাকা, বুধবার ২৭শে ডিসেম্বর ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি 156 বার পড়া হয়েছে