সর্বশেষ
বুধবার ৯ই কার্তিক ১৪২৫ | ২৪ অক্টোবর ২০১৮

তাড়াশের ২'শ বছরের ঐতিহ্যবাহী দই মেলা

সোমবার, জানুয়ারী ২২, ২০১৮

14.jpg
সোহেল রানা সোহাগ, সিরাজগঞ্জ থেকে :

চলনবিল অধ্যুষিত তাড়াশে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে দিন ব্যাপী দইয়ের মেলাকে ঘিরে এলাকায় সাঁজ সাঁজ রব পড়ে গেছে।

আজ সোমবার ভোর থেকে নামীদামী ঘোষদের দই আসার মধ্য দিয়ে তাড়াশের প্রায় দু’শ বছরের ঐতিহ্যবাহী দইয়ের মেলা শুরু হয়েছে।

দিনব্যাপী এ মেলায় দইসহ রসনা বিলাসী খাবার কেনা বেচা হবে। ঐতিহ্যবাহী চলনবিলের তাড়াশে দই মেলা নিয়ে রয়েছে নানা গল্প কাহিনী।

তাড়াশ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি তপন কুমার গোস্বামী জানান, তাড়াশের তৎকালীন জমিদার বনোয়ারী লাল রায় বাহাদুর প্রথম দই মেলার প্রচলন করেছিলেন। সাধারণত জনশ্রুতি আছে জমিদার রাজা রায় বাহাদুর দই ও মিষ্টান্ন পছন্দ করতেন। তাই এ দই মেলার আয়োজন।

এছাড়া জমিদার বাড়িতে আসা অতিথিদের আপ্যায়নে এ অঞ্চলে ঘোষদের তৈরি দই পরিবেশন করা হতো। আর সে থেকেই জমিদারবাড়ির সম্মুখে রশিক লাল রায় মন্দিরের পার্শ্বের মাঠে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে তিনদিনব্যাপী দই মেলা বসত।

প্রতি বছর শীত মৌসুমের মাঘ মাসে শ্রী পঞ্চমী তিথিতে দই মেলায় বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, নাটোর, রাজশাহী থেকে ঘোষেরা দই এনে মেলায় পসরা বসিয়ে কেনা-বেচা করেন। কথিত আছে সবচেয়ে ভাল সুস্বাদু দই তৈরিকারক ঘোষকে জমিদারের পক্ষ থেকে উপঢৌকন প্রদান করা রেওয়াজ ছিল সে সময়।

তবে জমিদার আমল থেকে শুরু হওয়া তাড়াশের দইয়ের মেলা মাঘ মাসের শ্রী পঞ্চমী তিথিতে উৎসব আমেজে বসার বাৎসরিক রেওয়াজ এখনও আছে এবং তা তিনদিনের স্থলে দু'দিন ব্যাপী করা হয়।

দইয়ের মেলায় আসা এ অঞ্চলের দইয়ের স্বাদের কারণে নামেরও ভিন্নতা রয়েছে। যেমন-ক্ষীরসা দই, শেরপুরের দই, বগুড়ার দই, টক দই, শ্রীপুরী, ডায়াবেটিস দই সহ এ রকম হরেক নামে ও দামের দই বিক্রি হয় দই। বিশেষ করে বগুড়ার শেরপুর, চান্দাইকোনা, শ্রীপুর, সিরাজগঞ্জের তাড়াশের দই প্রচুর বেচাকেনা হয়।

স্থানীয় একাধিক ঘোষের সাথে কথা বলে জানা যায়, দুধের দাম, জ্বালানী, শ্রমিক খরচ, দই পাত্রের মূল্য বৃদ্ধির কারণে দইয়ের দামও বৃদ্ধিও পাচ্ছে। তবে চাহিদা থাকার কারণে কোন ঘোষের দই অবিক্রীত থাকে না। যার কারণে মেলার আগেই ঘোষেরা দই তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

সরেজমিনে তাড়াশের দই মেলায় দেখা গেছে, মেলায় শিশু কিশোরদের পাশাপাশি বয়োবৃদ্ধদের দইয়ের দোকানে দই কিনতে ভিড় জমাতে।


ঢাকা, সোমবার, জানুয়ারী ২২, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ১৭৮৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন