সর্বশেষ
রবিবার ৫ই ফাল্গুন ১৪২৪ | ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

আইফোনের সোর্স কোড ফাঁস, এর ফলে যা হবে

শুক্রবার ৯ই ফেব্রুয়ারি ২০১৮

iphone-se-pre-order.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :

আইফোন, আইপ্যাডসহ বিভিন্ন আইওএস ডিভাইসে ব্যবহৃত আইবুট ফার্মওয়্যারের গোপনীয় সোর্স কোড ইন্টারনেটে ফাঁস হয়েছে।

গিটহাবে একটি পাবলিক রেপোজিটরিতে গতকাল এ সোর্সকোডটি ফাঁস হয়। আইবুটের এ সোর্সকোডের কপিরাইট শুধুমাত্র অ্যাপলেরই। এরই মধ্যে ডিএমসিএ আইনের অধীনে গিটহাব থেকে সোর্সকোডটি সরিয়ে নিয়েছে অ্যাপল।

বেশ কয়েকমাস ধরে সোশ্যাল নিউজ ওয়েবসাইট রেডিটে সোর্সকোডটি প্রকাশিত অবস্থায় থাকলেও কয়েকদিন আগে এটি গিটহাবে প্রকাশ করা হয়। টুইটারেও গিটহাবের লিংকটি শেয়ার করা হয় কয়েক হাজারবার।

আইবুট হলো আইওএস ডিভাইসের সেকেন্ড স্টেজ বুটলোডার। কোনো কারণে নষ্ট হয়ে যাওয়া আইওএস ডিভাইস সারানোর ক্ষেত্রে রিকভারি মোড চালু করার জন্য আইবুট ব্যবহার করা হয়। ডিভাইসে বুটলোডারটি এনক্রিপ্টেড অবস্থায় থাকে।

এটি ব্যবহার করে আইফোন বা আইপ্যাড জেইলব্রেক করা সম্ভব যার মাধ্যমে ডিভাইসে আনঅফিসিয়াল অ্যাপ বা অন্য কোনো কাস্টমাইজেশন করা যায়।

এ নিয়ে নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, সাইবার অপরাধীরা আইফোনের নিরাপত্তা ত্রুটি খুঁজে বের করার কাজে এ সোর্সকোড ব্যবহার করতে পারে।

তবে এর মাধ্যমে আইওএস ডিভাইস নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়বে না বলে দাবি অ্যাপলের। এক বিবৃতিতে অ্যাপল জানিয়েছে, ফাঁস হয়ে যাওয়া সোর্সকোডটি আইওএস ৯ অপারেটিং সিস্টেমের যা তিন বছরের পুরনো। এরই মধ্যে বেশিরভাগ ডিভাইসেই আইওএস ১১ এসেছে। অল্প কিছু ডিভাইস আইওএস ৯ ওএস নিয়েই চলছে।

এক বিবৃতিতে অ্যাপল জানিয়েছে, ‘আমাদের পণ্যের নিরাপত্তা শুধুমাত্র সোর্সকোডের গোপনীয়তার উপর নির্ভর করে না। প্রতিটি পণ্যেই কয়েক স্তরের হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার ভিত্তিক সুরক্ষা ব্যবস্থা রয়েছে।’


ঢাকা, শুক্রবার ৯ই ফেব্রুয়ারি ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি 1488 বার পড়া হয়েছে