সর্বশেষ
সোমবার ৪ঠা আষাঢ় ১৪২৫ | ১৮ জুন ২০১৮

শরীরের কোথাও আগুনে পুড়ে গেলে দ্রুত যা করবেন

বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২২, ২০১৮

Capture_2.JPG
বিডিলাইভ ডেস্ক :

দৈনন্দিন কাজের অংশ হিসেবে অনেক মেয়েদের রান্নার কাজে যেতেই হয়। রান্না কিংবা যে কোনোভাবেই আপনি আগুনে দগ্ধ হতে পারেন। কিন্তু আগুনে শরীরের কোনো অংশ পুড়ে গেলে কী করা উচিত তা অনেকের কাছে অজানা। অনেকে ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে ছোটাছুটি করেত থাকেন।

কারণ আগুনে শরীরের কোনো অংশ পুড়ে গেলে ক্ষতের সৃষ্টি হয়। শরীরের পুড়ে যাওয়া অংশ দেহের সৌন্দর্য নষ্ট করে। তবে আগুনে পুড়ে গেলে কী করতে হবে তা যদি আপনার জানা থাকে, তবে ক্ষত স্থানের যত্ন নিতে পারবেন নিজেই। শরীরের কোথাও পুড়ে গেলে জ্বালাপোড়া সহ্য করাটা অনেক কষ্টের। তাই তাৎক্ষণিক জ্বালাপোড়া কমানোর জন্য শিখে নিন কিছু ঘরোয়া উপায়।

# ঠাণ্ডা পানি
শরীরের কোনো অংশ পুড়ে গেলে সেখানে খুব ভালো করে ঠাণ্ডা পানি ঢালুন। মনে রাখবেন- কখনো বরফ দিয়ে ঘষতে যাবেন না।

# অ্যালোভেরা
পুড়ে যাওয়া স্থানে অ্যালোভেরার জেল লাগান। জ্বালাপোড়া কমে যাবে এবং ঠাণ্ডা অনুভব হবে। অ্যালোভেরার রস ক্ষত শুকাতে অসাধারণ কাজ করে।

# টুথপেস্ট
টুথপেস্ট শুধু দাঁত মাজার ক্ষেত্রেই ব্যবহার হয় না। পুড়ে যাওয়া স্থানে টুথপেস্ট লাগালে উপকার পাবেন শতভাগ। এছাড়াও আক্রান্ত স্থানে ফোঁসকা পড়বে না।

# মধু
পুড়ে যাওয়ার অংশে মধু লাগাতে পারলে জ্বালাপোড়া অনেক কমে যাবে। সঙ্গে পোড়া দাগও হওয়ার সম্ভাবনা কমে যাবে।

# দই
আগুনে পুড়ে যাওয়া ক্ষতের জ্বালাপোড়া কমাতে দই বা কাঁচাদুধ বিশেষভাবে কাজ করে। পুড়ে যাওয়া অংশে ৩০-৪০ মিনিট দই দিয়ে রাখুন। এতে জ্বালাপোড়া তো কমবেই, ফোসকা পড়বে না।

# টি ব্যাগ
শরীরের কোনো অংশ যখন সামান্য পুড়ে গেলে টি ব্যাগ মুক্তি পাবেন অনেকটাই। চা পাতায় আছে ট্যানিক এসিড যা ত্বককে শীতল করে। তাই পোড়া স্থানে ভেজা ঠাণ্ডা টি ব্যাগ ব্যবহার করলে ত্বকের জ্বালা ভাব ও অস্বস্তি কমে যায়। পোড়া জায়গায় কয়েকটি ঠাণ্ডা ভেজা টি ব্যাগ ধরে রাখুন।

# কলার খোসা
কলার খোসা জ্বালাপোড়া কমাতে খুবই উপকারী। পুড়ে যাওয়া স্থানে কলার খোসা অ্যান্টিসেপটিক হিসেবে কাজ করে।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২২, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১০৩১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন