সর্বশেষ
সোমবার ৪ঠা আষাঢ় ১৪২৫ | ১৮ জুন ২০১৮

এপ্রিলে কাতার থেকে আসছে প্রাকৃতিক গ্যাস 'এলএনজি'

সোমবার, মার্চ ৫, ২০১৮

5.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

দেশের ক্রমবর্ধমান জ্বালানি চাহিদা মেটাতে আগামী ২৫শে এপ্রিল কাতার থেকে আসছে আমদানি করা তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস বা এলএনজি।

প্রতিদিন ৫০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস মূল গ্রিডে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে সরকার। ১৫ মে থেকে চট্টগ্রামে সরবরাহের মধ্য দিয়ে শুরু হবে সারাদেশে সরবরাহ।

কাতার থেকে জাহাজে করে এলএনজি গ্যাস আমদানি করে তা মহেশখালীর টার্মিনাল দিয়ে পাইপলাইনে সরবরাহ করা হবে। টার্মিনালে প্রথম ধাপে ৫০ কোটি ঘনফুট আসার পর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় গ্রীডে যুক্ত হলে দেশের শিল্পখাতে বিদ্যমান গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংকট মেটাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে এই এলএনজি।  

গ্যাস সংকটের কারণে চট্টগ্রামসহ সারা দেশে বন্ধ হয়ে যায় একের পর এক শিল্প কারখানা। অবকাঠামোগত সব ধরণের সুবিধা থাকার পরেও গ্যাসের অভাবে উৎপাদনে যেতে পারেনি অনেক প্রতিষ্ঠান।

কক্সবাজারের মহেশখালীতে ভাসমান টার্মিনাল থেকে পাইপ লাইনের মাধ্যমে প্রথমে চট্টগ্রামে, তারপর সারা দেশে প্রতিদিন সরবরাহ করা হবে ৫০ কোটি ঘনফুট এলএনজি গ্যাস। এতে দেশে দৈনিক ৭০ ঘনফুট গ্যাসের যে সংকট রয়েছে, তা অনেকাংশে দূর হবে।

এলএনজি আমদানির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে শিল্পকারখানা প্রাণ ফিরে পাবে বলে জানান ব্যবসায়ীরা। একই সাথে গ্যাসের দাম কমানোর আহ্বান জানান তারা।

জানা গেছে, দেশে বর্তমানে গড়ে প্রতিদিন প্রায় ২৬৯ কোটি ঘনফুট গ্যাস উৎপাদিত হচ্ছে। এরপরও শিল্পকারখানায় গ্যাস–সংকট রয়েছে। বর্তমানে শিল্পকারখানায় প্রতি ঘনমিটার (৩৫ দশমিক ৩১৪৭ ঘনফুট) গ্যাস বিক্রি হচ্ছে ৭ টাকা ৭৬ পয়সা দরে। এলএনজি আমদানি-পরবর্তী প্রতি ঘনমিটারের প্রস্তাবিত মূল্য ধরা হয়েছে ১৪ টাকা ৯০ পয়সা। এতে শিল্পপণ্যের উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা।
 
চট্টগ্রামে ২৬৫টি প্রতিষ্ঠান ডিমান্ড নোট ইস্যু করলেও টাকা জমা দিয়েছেন মাত্র ৬৫জন। যারা  আবেদন করেনি তাদের দ্রুত আবেদনের আহবান জানানো হয় মতবিনিময় সভায়।


ঢাকা, সোমবার, মার্চ ৫, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ১৫১৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন