সর্বশেষ
মঙ্গলবার ৮ই কার্তিক ১৪২৫ | ২৩ অক্টোবর ২০১৮

নামবে ১৬টি নতুন ট্রেন, জুড়বে ১৫০-২০০ বগি

রেলওয়ের ঈদ প্রস্তুতি

শনিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৮

1475073898.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

আসছে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এবারো ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এ উপলক্ষে অতিরিক্ত ১৫০-২০০টি বগি এবং ২০-২২টি ইঞ্জিন মেরামত করে রেলে সংযুক্ত করা হবে। আর সেই সঙ্গে ৮ জোড়া স্পেশাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) মিয়া জাহান।

গতকাল মঙ্গলবার তিনি জানান, এবার ঈদুল ফিতরে যাতে যাত্রীরা নির্বিঘ্নে ঈদ করতে বাড়ি যেতে পারেন এবং ঈদের পরে কর্মস্থলে ফিরে আসতে পারেন সে জন্য আমরা ইতোমধ্যে বেশ কিছু পরিকল্পনা নিয়েছি। নতুন করে ১৫০-২০০ বগি জোড়া হবে, সঙ্গে ইঞ্জিনও প্রস্তুত থাকবে, ওয়ার্কশপগুলোতে মেরামতের কাজ চলছে। যাত্রী চাপ সামলাতে ঢাকা-রাজশাহী, ঢাকা-পার্বতীপুর, ঢাকা-দিনাজপুর, ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ ১ জোড়া করে এবং চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুরে ২ জোড়া মোট ৬ জোড়া স্পেশাল ট্রেন ঈদের তিন দিন আগ থেকে ঈদের পরে তিন দিন পর্যন্ত চলাচল করবে। সেই সঙ্গে ঈদের দিনে ভৈরব থেকে কিশোরগঞ্জ এবং ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ- এ দুরুটে দুজোড়া ঈদ স্পেশাল ট্রেন চলাচল করবে। সর্বমোট ১৬টি ট্রেন বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সেই সঙ্গে দেশে প্রতিদিন চলমান ৩৪৮টি ট্রেনে অতিরিক্ত বগি জোগান দেয়া হবে, প্রতিটি ট্রেন ১৩ থেকে ১৫ বগি নিয়ে ছুটবে। প্রয়োজনে তা বাড়ানো হবে। সেই সঙ্গে যুক্ত হবে এ ১৬টি নতুন ট্রেন। যাতে করে প্রায় ৭৫ হাজার থেকে ১ লাখ অতিরিক্ত যাত্রী ঈদে বাড়ি যেতে পারবেন।

মিয়া জাহান জানান, এ জন্য ইতোমধ্যে আমাদের দুটি বড় ওয়ার্কশপ পার্বতীপুর ও পাহাড়তলীতে কাজ শুরু হয়েছে। যেসব বগি সামান্য সমস্যার জন্য চলাচল করত না সেগুলো মেরামত ও রং করার কাজ চলছে। সেই সঙ্গে বিদ্যুৎ লাইন, আলো, বাথরুম, দরজা-জানালাসহ সব বিষয়ে অতিরিক্ত ১৫০-২০০টি বগি আমরা প্রস্তুত করব। এ সময় আমরা বেশি বগির ট্রেন চালানোর চেষ্টা করব। লালমনিরহাটের জন্য অতিরিক্ত একটি রেক রেডি থাকবে। প্রতি বছর লালমনিরহাট এক্সপ্রেস ট্রেনটি বিলম্ব ঘটে। এটি যাতে এবারের ঈদে আর বিলম্ব না হয় সজন্য আমরা একটি অতিরিক্ত রেকের ব্যবস্থা করেছি। এ ছাড়া ট্রেনের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সিগনালিং ব্যবস্থা আধুনিকায়ন করা হবে। কর্মীদের ট্রেন বিলম্ব না করানোর জন্য বিশেষ নির্দেশনা ও মনিটরিং করা হবে। আশা করি, আসছে ঈদে ট্রেনের কোনো সমস্যা হবে না।

পাহাড়তলী ওয়ার্কশপের ডিএস ফকির মহিউদ্দীন বলেন, জনবল সংকট নিয়েই আমরা কাজ শুরু করেছি। ২২০০ জন কর্মীর মধ্যে মাত্র ১০৫০ জন কর্মী আছে। তা ছাড়া অর্থের ঘাটতি তো রয়েছেই। গতবারে এখান থেকে ৮৫টি কোচ মেরামত করি। এবার কতটা কোন ক্লাসের বগি মেরামত করতে হবে তার সঠিক তালিকা এখনো আসেনি। তবু আমরা কাজ শুরু করে দিয়েছি।

এ বিষয়ে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক জানিয়েছেন, ঈদের এখনো বাকি রয়েছে। আমরা চলতি মাসের শেষে মিটিং করে ঠিক করব কতটা বগি বা কটা নতুন ট্রেন চালু করতে পারব। তবে ঢাকা-রাজশাহী, ঢাকা-পার্বতীপুর, ঢাকা-দিনাজপুর, চট্টগ্রাম-চাঁদপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাত্রী চাহিদার কথা মাথায় রেখে স্পেশাল ট্রেনের ব্যবস্থা করা হবে। সেই সঙ্গে নিয়মিত চলাচলকারী ট্রেনগুলোতে বগি সংযুক্ত করে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা হবে। গতবারে যাত্রীদের টিকেট না পাওয়াসহ যেসব অভিযোগ ছিল এবারে তা যেন যাত্রীরা করতে না পারেন সেদিকে বিশেষ নজর দেয়া হবে। ঈদের সময় প্রতিটি ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল করা হবে। সূত্র: ভোরের কাগজ


ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ২৮৪৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন