সর্বশেষ
শুক্রবার ১১ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ | ২৫ মে ২০১৮

গুরুত্বপূর্ণ তিনটি ভুলের কারণে হেঁটে উপকার মিলছে না

সোমবার, মে ১৪, ২০১৮

11267084_6546.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

হাঁটা কিন্তু সাঁতার বা দৌড়ানোর মতোই পুরো দেহের ব্যায়ামের কাজটি সেরে দেয়। যদি মনে করেন হাঁটা নিম্নমানের ব্যায়াম, তো ভুল করছেন।

দেহের বিভিন্ন স্থানের পেশি সুগঠিত করতে হাঁটা খুব উন্নত শরীরচর্চা পদ্ধতি। এমনকি হাঁটার মাধ্যমে আপনি ওজন ঝরাতে পারেন। দুটো পায়ে সমানে এগিয়ে যাওয়ার কাজটি যে আপনাকে ফিট দেহ উপহার দেয় তার সম্পর্কে হয়তো ধারণাও নেই আপনার। কিন্তু অনেকে প্রচুর হেঁটেও আশানুরূপ ফল পান না।

এর পেছনে কিছু ভুল আছে। এখানে বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছে সেই ভুলের কথা। এদের কারণে বেশি বেশি হেঁটেও সুফল পাচ্ছেন না আপনি। এখানে গুরুত্বপূর্ণ তিনটি ভুলের কথা বলা হলো।

হাতের ব্যবহারে হাঁটেন না
এখানে বোঝানো হচ্ছে না যে আপনাকে বুকে হেঁটে যেতে হবে। হাঁটা কেবল দুই পায়ের ব্যায়াম না। সঠিক পদ্ধতিতে ব্যায়াম করতে চাইলে হাঁটার ছন্দের সঙ্গে দুই হাতকেও ব্যবহার করতে হবে। এতে হাত এবং কাঁধের ব্যায়াম হয়। হণ্টন প্রক্রিয়া শতভাগ কাজে লাগে তখন। ওজন কমানোর মতো হাঁটা যদি হাঁটতে চান, সেক্ষেত্রে দুই হাত পায়ের সঙ্গে ছন্দ মিলিয়ে ৯০ ডিগ্রি কোণ পর্যন্ত ওঠান। বাম পা সামনে বাড়ার সঙ্গে ডান হাত ওপরে তুলে ফেলুন। একই কাজ ডান পায়ের ক্ষেত্রেও করুন।

দীর্ঘ পদক্ষেপে হাঁটেন
যদি অনেক বেশি পথ বড় বড় পদক্ষেপে হেঁটে যেতে চান তবে ভুল করবেন। শরীর গঠন এবং ওজন কমানোর জন্যে এ ধরনের হাঁটা তেমন কাজে লাগবে না। আপনি দ্রুত হাঁটেন, তাতে কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু স্বাভাবিক পদক্ষেপে হাঁটবেন। ছোট ছোট পদক্ষেপে দ্রুত হাঁটতে থাকবেন। ধীরে ধীরে গতি বাড়াতে হবে। পদক্ষেপ দীর্ঘ করার চেষ্টা করবেন না।

সমান সোলের জুতা পড়ে হাঁটা
এটা আরেকটা অতি সাধারণ ভুল। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষই জানেন না। সামনে যে পা এগিয়ে গেলো তা মাটিতে পড়ে গোড়ালি থেকে। প্রথমে গোড়ালি স্পর্শ করে এবং পরে পায়ের পাতা মাটিতে ঠাঁই নেয়। কিন্তু জুতার গোড়ালিতে বাড়তি সোল না থাকলে গোড়ালি জোরেসোরে মাটিতে পড়ে। এতে ব্যথা পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই যাদের এমন সমস্যা হয় তাদের এমন জুতা বা স্যান্ডেল পরে হাঁটা উচিত যার গোড়ালি অংশের সোল একটু উঁচু।


ঢাকা, সোমবার, মে ১৪, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ১৫৪৭ বার পড়া হয়েছে