সর্বশেষ
সোমবার ১১ই আষাঢ় ১৪২৫ | ২৫ জুন ২০১৮

অধিক মূল্যের অভিযোগে শ্রীমঙ্গলের গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্টকে জরিমানা

বৃহস্পতিবার, জুন ৭, ২০১৮

10.jpg ছবি উৎস : বিডিলাইভ২৪
তোফায়েল পাপ্পু, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি :

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট এন্ড গল্ফ-কে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্য নেওয়ার কারণে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর ৪০ ধারা ভঙ্গের অপরাধে নগদ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একইসাথে আইন অনুযায়ী অভিযোগকারীকে নগদ ১০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে।

৬ জুন বুধবার সকালে নিজ কার্যালয়ে বসে এই জরিমানা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আল-আমিন। এসময় গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট এ পক্ষে মাহমুদুল ইসলাম উক্ত জরিমানার টাকা পরিশোধ করেছেন।

পরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মো. আল-আমিন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর মৌলভীবাজার জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আল-আমিন জানান, চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল তারিখে জাহিদুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্টে গেলে সেখানে তার কাছ থেকে আধা লিটার ওজনের পানির মূল্য রাখা হয় ৫০ টাকা। বিষয়টি নিয়ে পরবর্তীতে মে মাসের ৭ তারিখে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করেন তিনি। এ অভিযোগের ভিত্তিতে উভয় পক্ষের সম্মুখে উপযুক্ত প্রমাণ সহকারে গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট কর্তৃপক্ষকে দোষী সাব্যস্ত করে এ জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, যে কোন পণ্য বা সেবায় নির্ধারিত মূল্য বা বিনিময়ে সে পণ্য বা সেবা পাওয়া সকল ভোক্তার অধিকার। তাই পণ্যের উপাদান, মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ, বিক্রয়মূল্য, কার্যকারিতা জানার অধিকারও রয়েছে তাদের। এর যেকোনোটির ব্যত্যয় ঘটলে সে পণ্য বা সেবাদানকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করার অধিকার তিনি সহজাতভাবেই ভোগ করবেন। সর্বোপরি কোনো পণ্য বা সেবা ব্যবহারের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হলে তার ক্ষতিপূরণ পাওয়াও প্রত্যেক ভোক্তার একান্ত অধিকার।

এজন্য ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর ৪০ ধারা অনুযায়ী কোন পণ্যের নির্ধারিত মূল্য অপেক্ষা অধিক মূল্য বা সেবা বিক্রয় বা বিক্রয়ের প্রস্তাব প্রমাণিত হলে ওই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে অনূর্ধ্ব এক বছর সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদণ্ড বা অনধিক পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করার বিধান রয়েছে। এ আইনে অভিযোগকারীকে মোট জরিমানা আদায়ের ২৫ শতাংশ হারে নগদ প্রদানের বিধান রয়েছে।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জুন ৭, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এইচ এই লেখাটি ১৯৬৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন