সর্বশেষ
শনিবার ৫ই কার্তিক ১৪২৫ | ২০ অক্টোবর ২০১৮

টানা বর্ষণে রাঙামাটিতে পাহাড়ধস, চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতা

সোমবার, জুন ১১, ২০১৮

10_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ভারি বর্ষণের কারণে চট্টগ্রাম, রাঙামাটিসহ পার্বত্য অঞ্চলে পাহাড় ধস ও জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগে পড়েছে জনসাধারণ।

রাঙামাটিতে একাধিক স্থানে পাহাড় ধস হলেও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসকারীদের আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নিতে তৎপর রয়েছে প্রশাসন। চট্টগ্রামে অতিবৃষ্টি আর জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে নগরীর নিম্নাঞ্চল।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে অতিবৃষ্টির কারণে রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজার উন্নয়ন বোর্ড কার্যালয় সংলগ্ন, পুরাতন বাস স্টেশন, শিমুলতলী, সাপছড়ি, মানিকছড়ি, দেপ্পোছড়ি, ভেদভেদীসহ একাধিক স্থানে পাহাড় ধস হয়েছে। তবে তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে মাইকিং করা হলেও ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা ছাড়েনি বেশিরভাগ বাসিন্দা।

অতিবৃষ্টির কারণে এরইমধ্যে রাঙামাটি-চট্টগ্রাম, রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কের একাধিক স্থানে সড়কের ওপর পাহাড় ধসে ব্যাহত হচ্ছে যান চলাচল। জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন, ক্ষয়ক্ষতি রোধে মাঠে তৎপর রয়েছেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

এদিকে চট্টগ্রামে আজ ভোর ৬টা পর্যন্ত ২৪২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিস। আর নিম্নচাপের প্রভাবে স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েক ফুট বেড়েছে জোয়ারের উচ্চতা। টানা বৃষ্টি আর জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে হালিশহর, আগ্রাবাদ সিডিএ, মুরাদপুর, চকবাজার। বেড়েছে নগরবাসীর দুর্ভোগ।

ভারি বৃষ্টিতে ধস রোধে নগরীর বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় পাহাড়ের পাশ থেকে সরে যেতে মাইকিং করেছে জেলা প্রশাসন।

এদিকে সোমবারও ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। পাশাপাশি সমুদ্রবন্দরগুলোতে বহাল রয়েছে ৩ নম্বর সর্তক সংকেত।


ঢাকা, সোমবার, জুন ১১, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৩০২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন