সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ব্যস্ততার মাঝেও সঙ্গীকে খুশি রাখার সহজ উপায়

সোমবার, জুন ১৮, ২০১৮

chalbazz.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

সঙ্গীকে খুশি রাখার উপর নির্ভর করে একটি সম্পর্কের স্থায়ীত্ব ও সুখী জীবন। একে অন্যের উপর খুশী না থাকলে সহজে সম্পর্কে ভাঙ্গন আসে, সম্পর্ক আস্থাহীন হয়ে পরে। অনেক কারণেই সঙ্গীকে হারাতে হয় তবে ভাঙনের পেছনে মূলত কাজ করে এই অখুশি থাকাই।

প্রেম নিয়ে অনেকের মধ্যে আবার ভ্রান্ত ধারণা আছে। কেউ মনে করে দামি উপহার কিংবা ভালো রেস্টুরেন্টে না খাওয়ালে ভালোবাসা টিকে না। কিন্তু এই ধারণা ঠিক নয়। ব্যস্ততাপূর্ণ এই জীবনে কাছের মানুষের সঙ্গে একটু সময় কাটানো কিংবা সামান্য স্পর্শতেই প্রকাশ পেতে পারে ভালোবাসা। কিছু সাধারণ কাজেই সহজে সঙ্গী খুশি হবে এবং ভালোবাসাও বাড়বে  বহু গুণ।

# ছবি তুলুন কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়ার জন্য নয়। নিজেদের স্মৃতি হিসেবে রাখুন। এই ছবিই যখন দেখবেন তখন ভালোবাসার মানুষটির সঙ্গে কাটানো সেই মুহূর্ত বার বার ফিরে আসবে।

# সবসময় মাথায় রাখবেন, আপনার ক্যারিয়ারই একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ নয়। তার কাজও গুরুত্বপূর্ণ। তাই তার কথাগুলোও মন দিয়ে শুনুন।

# সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলার সময় ফোন ব্যবহার থেকে দূরে রাখুন। সঙ্গীর কথা শুনুন। কথা বলার সময় ফোন সঙ্গে রাখলে আপনার সঙ্গীর মনে হতেই পারে, আপনি তার কথায় গুরুত্ব দিচ্ছেন না।

# নিজের কাজ-কর্মের কথা শেয়ার করুন। দিন যতটাই খারাপ যাক, সঙ্গীকে বলুন। এতে সম্পর্কের গভীরতা বাড়বে। তাকে বোঝান তিনিও আপনার নিত্য জীবনের অঙ্গ।

# সঙ্গীকে কতটা ভালবাসেন, তা একটি চিরকুটে লিখে রাখুন। এমন জায়গায় রাখুন, যাতে তার চোখে পড়ে। এতে সে আচমকা খুশি হবে। সঙ্গীকে নিয়ে একসঙ্গে সিনেমা দেখুন।

# ডেটে যান। প্রেম করছেন কিংবা বিয়ে করে ফেলেছেন বলে ডেট করতে ভুলে যাবেন না। আর ডেটে যাওয়ার সময় অবশ্যই পরিপাটি হয়ে বের হবেন।

#  সম্ভব হলে সঙ্গীর কর্মক্ষেত্রে ফুল পাঠান। এতে তিনি যেমন সারপ্রাইজড হবেন, তেমনই তার ভালো লাগবে। আর তার ফল আপনিই পাবেন।

# তার পছন্দের গানের তালিকা তৈরি করুন। কখনো কোনো অনুষ্ঠানে বা সুযোগ পেলে সেই গান তাকে উপহার দিন। এতে রোমান্স বাড়বে।

# সম্পর্কের জন্য বিশ্বাস খুবই গুরুত্বপূর্ন, আস্থাহীন সম্পর্ক টিকে থাকে না। সঙ্গীকে বিশ্বাস করুন তার কথার মূল্যায়ন আপনাদের সুন্দর জীবনের স্বার্থেই করা উচিত।

# এই রান্না করার বিষয়টি কিন্তু নারী পুরুষ উভয়ের জন্যই প্রযোজ্য। নারীরা তার সঙ্গীর পছন্দের খাবার রান্না করে খাওয়ালেই আপনার সঙ্গী অনেক বেশি খুশি থাকবেন। পুরুষেরাও এই কাজটি করতে পারেন। তবে পুরুষেরা যদি পছন্দের খাবার নাও রাঁধতে পারেন তারপরও সঙ্গীকে সারপ্রাইজ করতে কিছু রান্না করে সামনে এনে দিলেই সঙ্গিনী অনেক খুশি হয়ে যাবেন।

# কোনো উপলক্ষ থাকলে তো একে অপরকে উপহার দেয়াই হয়। কিন্তু এর বাইরেও সঙ্গীর কথা মনে করে ছোট্ট কিছু নিয়ে এলেন, তাকে সারপ্রাইজ করে দিলেন, এতেও সঙ্গী অনেক বেশি খুশি হবে। এর জন্যও অনেক খরচ করার প্রয়োজন নেই। একটি ফুল বা ছোট্ট একটি কার্ডই যথেষ্ট।


ঢাকা, সোমবার, জুন ১৮, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১১৩৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন