সর্বশেষ
শুক্রবার ৬ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গায়ের রং নিয়ে খোঁটা, যেভাবে ৫ জনকে মারল গৃহবধূ

শনিবার, জুন ২৩, ২০১৮

image.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

রোজ রোজ রান্না নিয়ে কটাক্ষ! সঙ্গে গায়ের রং কালো বলে নিয়মিত গঞ্জনা! অনেক দিন ধরেই প্রতিশোধের মতলব আঁটছিলেন তিনি। কিন্তু, শেষ পর্যন্ত সেই প্রতিশোধ নিতে গিয়ে যে ভয়ঙ্কর কাণ্ড ঘটিয়ে ফেললেন গৃহবধূ, তাতে শিউরে উঠেছেন এলাকাবাসী। অনুষ্ঠান বাড়িতে ডালে বিষ মিশিয়ে দেওয়ায় মৃত্যু হল তিন শিশু-সহ পাঁচ জনের। অসুস্থ আরও প্রায় ৮০ জন। অনেকেই বলছেন, লাঞ্ছনা-গঞ্জনার ‘প্রতিশোধে’ কার্যত গণহত্যার চেষ্টা করেছে ওই গৃহবধূ।

খাবার ডালে সাপ মারার বিষ মিশিয়ে তিনি খুন করেছেন শ্বশুরবাড়ির পাঁচ আত্মীয়কে। এই অভিযোগে ওই গৃহবধূকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, গ্রেফতারের পর প্রদন্যা সারভাসে নামে ওই গৃহবধূ খাবারে বিষ মেশানোর কথা স্বীকারও করেছেন। একই পরিবারের পাঁচ জনের মৃত্যুতে মহারাষ্ট্রের খালাপুর গ্রামে এখন শোকের ছায়া।

প্রদন্যা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন, দু’বছর আগে সুরেশ গোবিন্দ সারভাসের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। কিন্তু তার পর থেকেই তাঁকে কালো বলে নানা রকম কথা শোনাতেন স্বামী-সহ শাশুড়ি সিন্ধু সারভাসে, বিবাহিত দুই ননদ এবং অন্য প্রায় সব আত্মীয়রাই। পাশাপাশি তাঁর রান্না নিয়েও নানা রকম কটূ কথা শোনাত তারা। সেই রাগ ও অভিমানেই শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে খুনের চেষ্টা করেন বলে পুলিশকে জানিয়েছেন প্রদন্যা।

পুলিশ সূত্রে খবর, সুভাষ মানে নামে প্রদন্যাদের পরিবারের এক আত্মীয় সোমবার একটি গৃহপ্রবেশের অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। তাতে শতাধিক আত্মীয়-পরিজনের সঙ্গে প্রদন্যার পরিবারের লোকজনকেও নিমন্ত্রণ করেন। অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রদন্যা গোপনে ডালের মধ্যে সাপ মারার বিষ ডালের মধ্যে মিশিয়ে দেন। পুলিশি জেরায় তিনি এ-ও জানিয়েছেন, লুকিয়ে বাড়ি থেকে ওই বিষ-পাউডার নিয়ে গিয়েছিলেন।

কিন্তু খাওয়া-দাওয়া শেষ হওয়ার পরই শ্বাসকষ্ট, বমি ও পেটে ব্যথার মতো উপসর্গ শুরু হয় অনেকের। একে একে অসুস্থ হয়ে পড়েন ৮৮ জন। তাঁদের স্থানীয় দু’-তিনটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। গত কয়েক দিনে তাদের মধ্যে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়। মৃতদের মধ্যে তিনটি শিশুও রয়েছে।

অসুস্থ হলেও প্রাণে বেঁচে গিয়েছে পরিবারের বছর তেরোর এক সদস্য। সে জানিয়েছে, খাওয়ার সময় ডাল অত্যন্ত কটূ স্বাদ লেগেছিল। তার পর আর কিছু মনে নেই তার।

অনুষ্ঠান বাড়িতে এত লোকজন এবং খাবার রান্না ও পরিবেশনের লোকজনের মাঝে ঢুকে কী ভাবে প্রদন্যার পক্ষে বিষ মেশানো সম্ভব হল, তা নিয়েই সন্দিহান পুলিশ। সেই কারণেই ওই অনুষ্ঠানে যারা খাবার পরিবেশন করেছিল, তাদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। পাশাপাশি কোথা থেকে কী ভাবে প্রদন্যা বিষ পেলেন, সেই বিষয়টি জানতে তাঁকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা


ঢাকা, শনিবার, জুন ২৩, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৩৮৪৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন