সর্বশেষ
সোমবার ৯ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার’ প্রদান আগামী ৮ জুলাই

বুধবার, জুলাই ৪, ২০১৮

12_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার’। চলচ্চিত্র শিল্পের বিকাশ ও উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য ব্যক্তি, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র ও প্রামাণ্যচিত্রে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করে থাকে।

আগামী ৮ জুলাই জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে এবারের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করা হবে। এরই মধ্যে আমন্ত্রিত অতিথিদের হাতে পৌঁছে গেছে আমন্ত্রণপত্র। তথ্য মন্ত্রণালয় সূত্রের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে ডিএমপি নিউজ।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এবারের ৪২তম আসর বসবে। এ অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কারের ট্রফি তুলে দেবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এবার আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন চলচ্চিত্রের গুণী অভিনয়শিল্পী ফারুক ও ববিতা। ২০১৬ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে অমিতাভ রেজার ‘আয়নাবাজি’ সিনেমাটি সাতটি বিভাগে পুরস্কার জিতে। এতে সেরা পরিচালক, সেরা অভিনেতা, সেরা চিত্রগ্রাহকসহ মোট সাতটি পুরস্কার পাচ্ছে। পুরস্কার অর্জনের দিক দিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে নাদের চৌধুরী পরিচালিত ‘মেয়েটি এখন কোথায় যাবে’ সিনেমাটি। সেরা গীতিকার, সেরা সুরকার ও সেরা সংগীত পরিচালকসহ চারটি পুরস্কার জিতেছে এ সিনেমাটি। এবারের আসরে সেরা চলচ্চিত্রের পুরস্কার জিতেছে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘অজ্ঞাতনামা’। সেরা চলচ্চিত্রের পাশাপাশি সিনেমাটি সেরা কাহিনিকার এবং সেরা খল অভিনেতার পুরস্কার জিতেছে। গৌতম ঘোষের ‘শঙ্খচিল’ সিনেমাটি পেয়েছে তিনটি পুরস্কার।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পে অবদানের জন্য ২৬টি বিভাগে ২৯ জন ব্যক্তিকে পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। প্রামাণ্যচিত্রের জন্য পুরস্কার পাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর ও একাত্তর মিডিয়া লিমিটেড।

পুরস্কার হিসেবে আঠারো ক্যারেটের পনেরো গ্রাম স্বর্ণের একটি পদক, পদকের একটি রেপ্লিকা, একটি সম্মাননা পত্র দেওয়া হবে। আজীবন সম্মাননা প্রাপ্তকে এক লাখ টাকা দেয়া হবে। শ্রেষ্ঠ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক ও শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রযোজককে ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হবে। এছাড়া শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালককে ৫০ হাজার টাকা ও অন্যান্য ক্ষেত্রে ত্রিশ হাজার টাকা প্রদান করা হবে।

১৯৭৫ সাল থেকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করে আসছে। ১৯৮১ সালে কোনো চলচ্চিত্র না পাওয়ায় সে বছর কোনো পুরস্কার প্রধান করা হয়নি। এছাড়া নিয়মিতভাবে বর্ণাঢ্য কর্মসূচির মাধ্যমে এ পুরস্কার প্রদান করে আসছে।


ঢাকা, বুধবার, জুলাই ৪, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // জে এইচ এই লেখাটি ২৩১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন