সর্বশেষ
বুধবার ৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ২১ নভেম্বর ২০১৮

নিষিদ্ধ হলেন সারিকা

শুক্রবার, আগস্ট ৩, ২০১৮

f-3.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

অ-শিল্পী সুলভ আচরণের জন্য মডেল-অভিনেত্রী সারিকাকে আগামী ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করেছে টিভি নাটকের সংগঠন ‘টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ’ (টেলিপ্যাব)।

১ আগস্ট থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়েছে। এ সময় সারিকা কোনো নাটক, মিউজিক ভিডিও, বিজ্ঞাপনসহ সমিতির কোনো কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছে।

গত ১০ এপ্রিল করা প্রযোজক মোহাম্মদ বোরহান খানের লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২৮ জুলাই টেলিপ্যাবের সালিস বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পরে সংগঠনের কার্যকরী কমিটিতে পাস হয় সিদ্ধান্তটি। সালিস বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন টেলিপ্যাবের সভাপতি মামুনুর রশীদ, সাধারণ সম্পাদক ইরেশ যাকের, সালিস বৈঠকের আহ্বায়ক তারেখ মিন্টুসহ অনেকেই।
 
সংগঠনটির পক্ষ থেকে ২ আগস্ট রাতে এর আহ্বায়ক তারেখ মিন্টুর স্বাক্ষরিত একটি বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে গণমাধ্যমকে।

সংগঠনটির সালিশ কমিটির আহ্বায়ক তারেখ মিন্টু জানান, প্রযোজক বোরহান খানের অভিযোগের ভিত্তিতে সম্প্রতি ‘অ-শিল্পী সুলভ আচরণের’ জন্য টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন ও অ্যাক্টর্স ইকুইটি বিষয়টি নিয়ে সারিকার সঙ্গে যোগাযোগ করে। কিন্তু এ বিষয়ে স্পষ্ট কোনও জবাব দিতে পারেননি সারিকা।

প্রযোজক বোরহান খানের অভিযোগ, গত ২১ মার্চ ৫টি নাটকের শুটিংয়ে নেপাল যাওয়ার কথা ছিল অভিনেত্রী সারিকার। আর এ জন্য নির্মাতার কাছ থেকে অগ্রিম পারিশ্রমিক ৫০ হাজার টাকা নেন সারিকা। সেই সঙ্গে রিটার্ন টিকেট ও নাটকের চিত্রনাট্যও বুঝে নিয়েছিলেন এ অভিনেত্রী। এর আগে ২০ মার্চ সারিকার সাথে নির্মাতাদের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, সময়মতো বিমানবন্দর যাবেন তিনি। কিন্তু সঠিক সময়ে বিমানবন্দরে শুটিং ইউনিউ পৌঁছালেও সারিকা যাননি। তারপর থেকেই সারিকার মুঠোফোন নম্বর বন্ধ পাওয়া গেছে।

এরপর সারিকাকে ছাড়াই নেপালে চলে যায় শুটিং ইউনিট। তাই পরিকল্পনায় থাকা সারিকাকে নিয়ে নাটক ৫টি নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। যার কারণে প্রযোজক বোরহান খান আর্থিকভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। প্রযোজক জানিয়েছেন, নাটক দুটি নির্মাণ করার কথা ছিল দীপু হাজরা ও আসাদুজ্জামান আসাদের৷ ওই বিবৃতিতে সংগঠনটি আগামী ছয় মাসের মধ্যে নাটক, মিউজিক ভিডিও, বিজ্ঞাপনসহ কোনো কর্মকাণ্ডে সারিকাকে না নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানায়।

নিষিদ্ধ হওয়ার ব্যাপারে সভাপতি মামুনুর রশীদ বলেন, এ ধরনের বিশৃঙ্খলা করেও ফোন ধরেননি, চিঠির কোনো উত্তরও দেননি সারিকা। বাধ্য হয়েই আমাদের এই ব্যবস্থা নিতে হয়েছে।


ঢাকা, শুক্রবার, আগস্ট ৩, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৩০৫৯ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন