সর্বশেষ
বুধবার ৩০শে কার্তিক ১৪২৫ | ১৪ নভেম্বর ২০১৮

আজও গণপরিবহন শূন্য রাজধানী

শনিবার, আগস্ট ৪, ২০১৮

2.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

রাজধানীর অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে আজও যাত্রীবাহী বাস নেই বললেই চলে। কেবল বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরশেনের (বিআরটিসি) কয়েকটি বাস চলছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় অত্যন্ত অপ্রতুল। তবে সড়কে রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস চলাচল করছে।

আজ শনিবার সকাল সোয়া ৮টা পর্যন্ত এমন চিত্র দেখা গেছে।

বিভিন্ন গন্তব্যগামী শত শত মানুষ রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছেন বা হাঁটছেন। রাইড শেয়ারিং যান, রিকশা বা অটোরিকশা, বিআরটিসির বাসে বা যেভাবেই হোক, গন্তব্যে যাওয়ার প্রাণপণ চেষ্টা করছেন তারা।

রোকেয়া সরণি, মিরপুর রোড, সাতমসজিদ রোড, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, মানিক মিয়া এভিনিউ, প্রগতি সরণি, এলিফ্যান্ট রোড ঘুরে কোনো গণপরিবহন দেখা যায়নি।

তবে রাজধানীর বাইরে দিনভর বন্ধ থাকলেও দেশের সব জেলা থেকে গতরাতে দূরপাল্লার যান চলাচল শুরু হয়।চট্টগ্রামে গতকাল শুক্রবার রাত ১১টার পর থেকে রাজধানী ঢাকাসহ ৬৪টি রুটে বাস চলাচল শুরু হয়। নগরীর দামপাড়া বিআরটিসি, কদমতলী এবং পাহাড়তলীর কাউন্টার থেকে বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় বাসগুলো।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলার বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের বাসের চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ছাড়া আহত হয় বেশ কয়েকজন। নিহত শিক্ষার্থীরা হলো শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজীব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে এরই মধ্যে ২০ লাখ টাকার অনুদান দিয়েছেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে রাস্তায় বিক্ষোভে ফেটে পড়ে শিক্ষার্থীরা। এরপর থেকে ঢাকার অভ্যন্তরীণ সড়কগুলোয় বাস চলাচল একেবারেই কমে যায়। এমনকি আন্তজেলা বাস চলাচলও বন্ধ হয়ে যায়।


ঢাকা, শনিবার, আগস্ট ৪, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৬৫১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন