সর্বশেষ
মঙ্গলবার ৪ঠা পৌষ ১৪২৫ | ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

কীভাবে নকল বা ক্লোন স্মার্টফোন চিনবেন?

রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮

phnone-122743.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

নতুন স্মার্টফোন কেনার ক্ষেত্রে সবসময়ই যাচাই করে নেওয়া উচিত। এক্ষেত্রে প্রথমে বাইরের ডিজাইনগত দিকটি যাচাই করে নেওয়ার পরে ফোনটি চালু করে হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যারগত বিষয়গুলো মিলিয়ে নিতে হবে। এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু অ্যাপ রয়েছে, যা দিয়ে মূলত স্মার্টফোনে ব্যবহৃত হার্ডওয়্যারগুলো (যেমন- প্রসেসর, জিপিইউ, ক্যামেরা সেন্সর ইত্যাদি) যাচাই করে নেওয়া সম্ভব।

স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে সহজেই আসল-নকল যাচাই করার জন্য সিপিইউ-জেড অ্যাপটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। অফিসিয়াল বৈশিষ্ট্যের সাথে মিলিয়ে নেওয়ার জন্য নতুন ফোনের ক্ষেত্রে 'সিপিইউ-জেড পরীক্ষা' করে নেওয়া যেতে পারে। ফোনটিতে ব্যবহৃত প্রসেসর, ক্যামেরাসহ যাবতীয় সবকিছু সম্পর্কে এই সিপিইউ-জেড অ্যাপের মাধ্যমে জেনে নেওয়া সম্ভব। প্লে স্টোর থেকে খুব সহজেই অ্যাপটি ডাউনলোড করে নেওয়া যায়।

বিভিন্ন ধরনের বেঞ্চমার্ক পরীক্ষা

বর্তমানে কম্পিউটারের পাশাপাশি স্মার্টফোনের গতি এবং সক্ষমতা যাচাই করার জন্য বেঞ্চমার্ক পরীক্ষা করে নেওয়ার জন্য নানা ধরনের অ্যাপ রয়েছে। এই সব অ্যাপের মাধ্যমে স্মার্টফোনের প্যারফর্মেন্সগত একটি স্কোর পাওয়া যায়। অফিশিয়াল স্কোরের সাথে ব্যবহৃত ফোনের স্কোর সামঞ্জস্যপূর্ণ হলে ফোনটি নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। তবে এই দুই স্কোরের মধ্যে সামঞ্জস্যবিহীন পার্থক্য থাকলে ফোনের মৌলিকত্ব নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেয়। গুগল প্লে স্টোর থেকে এ ধরনের বেঞ্চমার্ক ভিত্তিক অ্যাপগুলো পাওয়া সম্ভব।

আইএমইআই যাচাই

উদাহরণস্বরূপ আপনি www.imei.info সাইটে প্রবেশ করবেন। এবং *#০৬# ডায়াল করে আপনার ফোনের নিজস্ব আইএমইআই জেনে নিবেন। তারপর সাইটে “Enter IMEI” এর জায়গায় ফোনের আইএমআই নাম্বার লিখতে হবে। তারপর আপনি আপনার ফোনের বিস্তারিত সব তথ্য সেখানে পাবেন। ফোন কেনার তারিখ, ফোন ব্ল্যাকলিস্টেড নাকি এবং ফোনের ওয়ারেন্টি সবই পাবেন একসাথে। এক্ষেত্রে নন-ব্র্যান্ডের বা চায়না ফোনের বা ক্লোন বা মাস্টার কপির IMEI দিলে সাধারণত কিছু আসবে না।


ঢাকা, রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ২৬২৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন