সর্বশেষ
শুক্রবার ৪ঠা কার্তিক ১৪২৫ | ১৯ অক্টোবর ২০১৮

প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে কোটা বাতিলের প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

বুধবার, অক্টোবর ৩, ২০১৮

16.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে ৯ম থেকে ১৩তম গ্রেড পর্যন্ত অর্থাৎ প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পদে কোটা পদ্ধতি না রাখার প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

আজ বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। এর ফলে সরকারি চাকরিতে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে আর কোটা থাকছে না। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, 'আজ কালের মধ্যেই মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত আমরা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে জানিয়ে দিবো। তার প্রেক্ষিতেই জনপ্রশাসন প্রজ্ঞাপন জারি করবে।'

শফিউল আলম জানান, এ জন্য সপ্তাহ খানেক সময়ও লাগবে না। প্রজ্ঞাপন জারি হলেই সেদিন থেকে এটি কার্যকর বলে ধরে নেয়া হবে।

গত ১৭ অক্টোবর কোটা পর্যালোচনা কমিটির প্রতিবেদন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠান। সেখান থেকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হয়। আজ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সেটি মন্ত্রিসভায় উত্থাপন করে।

উল্লেখ্য, বর্তমানে সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ কোটা পদ্ধতি বহাল আছে। মেধা কোটায় চাকরি হচ্ছে ১০০ জনের মধ্যে মাত্র ৪৪ জনের। এটিকে বৈষম্য দাবি করে চাকরি প্রার্থী ও শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন ধরে কোটা বাতিলের দাবি করে আসছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে টানা আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১১ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দেন ‘কোনো কোটাই থাকবে না’। সব নিয়োগ হবে মেধার ভিত্তিতে। সূত্র: সময়টিভি


ঢাকা, বুধবার, অক্টোবর ৩, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৭২১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন