সর্বশেষ
শনিবার ১লা পৌষ ১৪২৫ | ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

কী আছে এস ৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থায়?

শুক্রবার, অক্টোবর ৫, ২০১৮

image-97714-1538755725.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

রাশিয়ার সঙ্গে ঐতিহাসিক এস-৪০০ প্রতিরক্ষা চুক্তি স্বাক্ষর করেছে ভারত। শুক্রবার দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

ভারতের সঙ্গে রাশিয়ার এস ৪০০ চুক্তি নিয়ে সম্পর্কের টানাপোড়েন দেখা দিয়েছে। ইতিমধ্যে চীনও রাশিয়ার মধ্যে এস ৪০০ নিয়ে চুক্তি হয়েছে। তবে রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের এমন সামরিক চুক্তি ট্রাম্প প্রশাসনকে চরম অস্বস্তিতে ফেলেছে। অত্যাধুনিক এ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস ৪০০তে কী আছে?

শুক্রবার বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, এস ৪০০ একই সময়ে ৩৬টি লক্ষবস্তুতে আঘাত হানতে পারে এমনকি একই সময়ে ৭২টি মিসাইল ছুড়তে সক্ষম।

এটি মাঝারি ও দূরপাল্লা আকাশ বিমান হামলা প্রতিরোধে সক্ষম। বিমান বাহিনীর প্রধান বি এস ধানো বলেন, এটার সরবরাহ আমাদের বিমান বাহিনীকে সহায়তা করবে। এটার কাজ গোপন বিমান ও অন্যান্য বিমানের অবস্থানে আঘাত হানা।

এয়ার ভাইস মার্শাল মানমোহন বাহাদুর বলেন, এটি একধরনের অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা যা চার ধরনের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দিয়ে থাকে।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, এ আকাশ প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থায় একটি যুদ্ধ নিয়ন্ত্রণ পোস্ট, তিনটি সমন্বয়কারী জ্যাম-প্রতিরোধী পর্যায়ক্রমিক অ্যারে রাডার, বিমানের লক্ষ্যমাত্রা শনাক্ত করা, ছয়-আটটি বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র কমপ্লেক্স (১২টি ট্রান্সপোর্টার-লঞ্চার, একটি বহু-কার্যকরী চার আলোকসজ্জা ও শনাক্তকরণ রাডার) যুক্ত রয়েছে। এছাড়া এটি একটি প্রযুক্তিগত সহায়তা ব্যবস্থা, একটি ক্ষেপণাস্ত্র পরিবহন যানবাহন ও একই সঙ্গে এটি প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা।

এস ৪০০তে রয়েছে অতিরিক্ত শনাক্তকারী রাডার, টাওয়ার ও এন্টোনা পোস্ট যা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নেয়া যায়। এর লক্ষ্যমাত্রা সর্বোচ্চ ৬০০ কিলোমিটার। যা মিসাইল শনাক্ত ও ধ্বংস করতে পারে ৫ থেকে ৬০ কিলোমিটারের মধ্যে।


ঢাকা, শুক্রবার, অক্টোবর ৫, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ১৯৯১ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন