সর্বশেষ
সোমবার ২৯শে আশ্বিন ১৪২৬ | ১৪ অক্টোবর ২০১৯

কালোজিরার নয় ঔষধি গুণ

বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৫, ২০১৮

images-11793.png
বিডিলাইভ ডেস্ক :

মৃত্যু ছাড়া সর্বরোগের ঔষধ আছে কালোজিরায়- প্রাচীন এই কথাটি কিন্তু মোটেই ভুল নয়। ছোট ছোট দানার এই কালোজিরা আসলে স্বাস্থ্যরক্ষার কালোমানিক। জেনে নিন কালোজিরার ৯ টি ঔষধি গুণ।

১. মুখের ব্রণ দূর করতে

দামি ক্রিম, ফেসওয়াশ আর বিউটি পার্লারে ফেসিয়ালের পেছনে হাজার টাকা ব্যায় না করে পাশের মুদি দোকান থেকে কিনে আনুন আধা কেজি কালোজিরা। কালোজিরা বেটে তাতে লেবুর রস আর চিনি মিশিয়ে মিশ্রণটি মাখুন পুরো মুখে। দশমিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহখানেক এই পদ্ধতি অনুসরণ করুন, দেখবেন ব্রন পালাবে বাপ বাপ করে।

২. চুল পড়া রোধে

কালোজিরার তেলের সুখ্যাতি আছে চুলপড়া রোধে। এই তেল কেবল চুল পড়াই রোধ করে না, মাথার তালুতে যোগায় আর্দ্রতা। ফলে চুলের বৃদ্ধিও বেড়ে যায় বহুগুণে।

৩. স্মৃতিশক্তি বাড়াতে

শিশু এবং বৃদ্ধ- যাদের কোনো কিছু মনে রাখতে সমস্যা হয়, তাদের জন্য দারুন উপকারী কালোজিরা। কালোজিরা ফোটানো পানিতে লেবু ও পুদিনা মিশিয়ে খেলে তা স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করবে বহুগুণ। কালোজিরা ভর্তাও খেতে পারেন রোজ ভাতের সঙ্গে, এটিও মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করবে বহুগুণ।

৪. শ্বাসকষ্ট সারাতে

অ্যাজমা এবং ক্রনিক কাশির সমস্যায় যারা ভোগেন, তাদের ক্ষেত্রেও ওষুধের মতো কাজ করে কালোজিরা। সকালে নাশতা খাওয়ার আগে গরম পানিতে মধু আর কালোজিরা মিশিয়ে টানা ৪০ দিন খেলে শ্বাসকষ্ট দূর হবে। এই সময়টুকুতে অবশ্য ঠান্ডা থেকেও নিজেকে রাখতে হবে দূরে। এভাবে ৪০ দিন কাটাতে পারলে কাশি এবং শ্বাসকষ্ট থেকে মুক্তি মিলবে নিশ্চিতভাবেই।

৫. হৃদরোগ প্রতিরোধে

যাদের হৃদরোগ আছে, তারা সুস্বাস্থ্য পেতে পান করুন কালোজিরা মেশানো দুধ। দুই বেলা এই দুধ দশদিন খাওয়ার পর এক বেলা করে খাবেন। হৃদরোগের কষ্ট কমার পাশাপাশি হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা এটি কমিয়ে আনবে অনেকটাই।

৬. উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে

উচ্চ রক্তচাপ থেকেই অনেক সময় হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের আশঙ্কা দেখা যায়। এটি নিয়ন্ত্রণে দারুণ কার্যকরী কালোজিরা। যে কোনো পানীয়ের সঙ্গে আধ চা চামচ কালোজিরা তেল মিশিয়ে খেলেই তা নিয়ন্ত্রণে রাখবে উচ্চ রক্তচাপ।

৭. সুস্থ দাঁতের জন্য

যাদের দাঁতে ব্যাথা হয়, তারা কালোজিরা তেল ভিনেগারে মিশিয়ে তা দিয়ে কুলকুচি করুন। দাঁতে ব্যাথা সেরে যাবে। মাড়ি থেকে রক্ত পড়ার সমস্যা থাকলে টক দইয়ে কালোজিরা বাটা মিশিয়ে মিশ্রণটি মাড়িতে লাগিয়ে রাখুন। দুই মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহখানেক পর মুক্তি মিলবে এই সমস্যা থেকে।

৮. ওজন কমাতে

রোজ ঘুমাতে যাওয়ার আগে আধকেজি টকদইয়ের সঙ্গে কালোজিরা বাটা মিশিয়ে খেয়ে দেখুন। ওজন কমতে মুরু করবে আগের চেয়ে অনেক দ্রুত।

৯. পাইলসের সমস্যা দূর করতে

কোষ্ঠকাঠিণ্যের সমস্যা যাদের আছে, তারাই জানেন এটি কতটা কষ্টদায়ক। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে রং চায়ের সঙ্গে কালোজিরার তেল মিশিয়ে খান প্রতিদিন।

সূত্র : এনডিটিভি হেলথ


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৫, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ১২৪৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন