সর্বশেষ
শনিবার ৩রা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৭ নভেম্বর ২০১৮

নারীদের যে ৪টি স্বাস্থ্য পরীক্ষা অবশ্যই করা উচিত

মঙ্গলবার, অক্টোবর ৩০, ২০১৮

001.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কোনও সমস্যা লুকিয়ে থাকলে প্রথমেই সেটা খুঁজে পাওয়ার দরকারি উপায় হল স্বাস্থ্য পরীক্ষা। জীবনের নানা পর্যায়ে স্বাস্থ্য ভালো থাকার জন্য রোগ সম্পর্কে আগে থেকেই জেনে নেয়াটা তাই বুদ্ধিমানের কাজ। ভারতীয় এক স্বাস্থ্যবিষয়ক অনলাইন পোর্টাল অবলম্বনে চলুন জেনে নিই যে চারটি স্বাস্থ্য পরীক্ষা নারীদের অবশ্যই করা উচিত।

রক্তচাপ ও কোলেস্টেরল
অধিক কোলেস্টেরল কিংবা রক্তচাপ, মহিলাদের স্ট্রোক ও হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। তাই ২০ বছরের বেশি বয়সের নারীদের অবশ্যই বছরে কমপক্ষে দুইবার রক্তচাপ ও কোলেস্টেরল পরীক্ষা করা উচিৎ।

ডায়াবেটিস
সেন্টার ফর ডায়াবেটিস কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন ৪৫ বছরের বেশী বয়সের মহিলাদের ডায়াবেটিসের পরীক্ষার সুপারিশ করেছে। বিশেষ করে যাদের ডায়াবেটিসের পারিবারিক ইতিহাস আছে অথবা ওজন বেশী এমন নারীরা কমবয়সী হলেও নিয়মিত এ পরীক্ষাটি করা উচিত।

হাড়ের ক্ষয়
মেরুদণ্ড বা নিতম্বের হাড়ের ক্ষয় মাপা এবং অস্টিওপোরোসিস রোগ নির্ণয়ের জন্য ডুয়াল এনার্জি এক্স-রে অ্যাবজর্পটিওমেট্রি অথবা স্ট্যান্ডার্ড বোন ডেনসিটি পরীক্ষা করা হয়। হাড়ের ঘনত্ব বেড়ে গেলে হাড় ভাঙার ঝুঁকি বেড়ে যায়। ৬০ বছর ও তার থেকে বেশী বয়সের নারীদের হাড়ের ঘনত্বের পরীক্ষা করা উচিৎ।

স্তন ক্যানসার
৪০ বছর ও তার থেকে বেশী বয়সী মহিলাদের স্তন ক্যান্সার সম্পর্কে অবশ্যই ধারণা থাকা দরকার, কারণ এটা বয়স বাড়ার সাথে হতে পারে। মেমোগ্রাম করানোটা দরকার যেহেতু এতে স্তন ক্যান্সারের প্রবণতা হবার সম্ভাবনা বোঝা যায়। মেমোগ্রাম হল স্তনের এক্সরে এবং স্তন ক্যান্সারের প্রাথমিক ধাপ বোঝার ক্ষেত্রে যথেষ্ট কার্যকর। গবেষণা দেখিয়েছে, যে ৪০ বছরের বেশী বয়সী মহিলাদের ক্ষেত্রে মেমোগ্রাম স্ক্রিনিং স্তনের ক্যান্সারের কারণে মৃত্যুর হার ১০ থেকে ২০ শতাংশ কমায়।


ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ৩০, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ৪৭০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন