সর্বশেষ
সোমবার ৩রা আষাঢ় ১৪২৬ | ১৭ জুন ২০১৯

বিএনপি মনোনয়ন বাণিজ্যে রেকর্ড করেছে: কাদের

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৮

kader20180805145807.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এবারের নির্বাচনে বিএনপি মনোনয়ন বাণিজ্যে রেকর্ড করেছে।

মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, (বিএনপি) প্রার্থী দেবে ৩০০। এর মধ্যে ঐক্যফ্রন্ট অাছে, সবাই তো বিএনপি না। তাহলে এখনও তাদের ৫৫৫ জন প্রার্থী টিকে অাছে। কোথা থেকে এলো? অামরা তো শুনছি খবর গুঞ্জন ছড়িয়ে ডালপালা হচ্ছে- বিএনপি এবার মনোনয়ন বাণিজ্যে রেকর্ড করেছে

ওবায়দুল কাদের বলেন, তাদের সব বাদ যাওয়া প্রার্থী ঋণ খেলাপি ও দণ্ডিত। ১৪১ জন প্রার্থী বাদ যাওয়ার পরও এখনও  ৫৫৫ জনের নাম রয়ে গেছে বৈধ। এটা কি মনোনয়ন বাণিজ্য নয়? কোনও কোনও শীর্ষ নেতা ঢাকা থেকে পালিয়ে গেছে। যাদের টাকা নিয়ে পালিয়েছে, তাদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ধরণা দিচ্ছে।’

বিএনপি আচরণবিধি লঙ্ঘন করছে অভিযোগ করে কাদের আরও বলেন, ‘১০ তারিখের আগে ক্যাম্পেইন করা যাবে না। তাদের শীর্ষ নেতারা প্রতিনিয়ত আচরণবিধি লঙ্ঘন করছে। মনোনয়ন বাণিজ্যের টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে, এরকম খবরও কিন্তু আমরা পেয়েছি।’

অভিযোগ করে কাদের বলেন, নির্বাচনের পরিবেশ বিঘ্নিত করতে নানা ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি। এজন্য তাবলিগ জামাতসহ অনেকের ওপর ভর করার চেষ্টা করছে।

‘আর নয়াপল্টন হচ্ছে মিথ্যাচারের ফ্যাক্টরি। সেখানে একজন আবাসিক নেতা রয়েছেন, যিনি সব সময়ই মিথ্যাচার করে বেড়াচ্ছেন,’ বিএনপি নেতা রিজভীর প্রতি ইঙ্গিত করে বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।   

তিনি বলেন, কামাল হোসেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নামকাওয়াস্তে নেতা। ঐক্যফ্রন্টের পিএম (প্রধানমন্ত্রী) ফেস নাই, তারা কাকে পিএম করবে সেই প্রশ্নের উত্তর পরিষ্কার করে নাই।

বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে যে, তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করে সরকার পুতুল নাচের খেলায় মেতেছে, এমন অভিযোগের জবাবে কাদের বলেন, ‘তাদের মনোনয়ন প্রক্রিয়াই একটা পুতুল নাচের খেলা। সরকার কেন করবে, নির্বাচন কমিশন কি সরকার? নির্বাচন কমিশন স্বাধীন কর্তৃত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

বিএনপির আচরণবিধি লঙ্ঘন সম্পর্কে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানানো হয়েছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনকে আমরা ইতোমধ্যে জানিয়েছি। সেখানে জিজ্ঞাসা করুন যে, তাদের বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ গিয়েছে। এখন তো ১০ তারিখের আগে পথসভা করতে পারে না। কিন্তু তাদের দুই-একজন শীর্ষ নেতা প্রতিনিয়ত আচরণবিধি লঙ্ঘন করছে।’

বিএনপির অভিযোগ— ‘নির্বাচন কমিশন সৎ মায়ের ভূমিকা পালন করছে, সরকার কোনও সহযোগিতা করছে না’, এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে কাদের বলেন, ‘এটা নির্বাচন কমিশনের বিষয়। এখানে সরকারের কোনও ভূমিকা নেই। যখন নির্বাচন কমিশন তাদের সঙ্গে নেই, তখন নির্বাচন কমিশন তো সৎ মা হয়ে যাবে। তাদের পক্ষে না থাকলে সব কিছুই উল্টা। তাদেরকে যদি নির্বাচন কমিশন গ্যারান্টি দিতে পারে— আগামী নির্বাচনে তারা জয়ী হবে। তাহলে কমিশন তাদের কাছে নিরপেক্ষ মনে হবে। তখন সৎ মা থেকে আপন  মা হয়ে যাবে।’


ঢাকা, মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৮ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি ১১২২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন