সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২৮শে কার্তিক ১৪২৬ | ১২ নভেম্বর ২০১৯

ঈগলের ফোন বিলে বিজ্ঞানীর পকেট ফাঁকা

সোমবার, অক্টোবর ২৮, ২০১৯

Eagle_1.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

আইগর কার্জাকিন,রাশিয়ার একজন বিজ্ঞানী ঈগল পাখি নিয়ে গবেষণা করেন। গবেষণার কাজে গতিপথ দেখার জন্য তিনি ১৩টি পাখির পায়ে 'ট্র্যাকিং ডিভাইস' বসিয়েছিলেন। ওই ডিভাইস থেকে তার মোবাইল ফোনে আসা এসএমএসের বিল দিতে গিয়ে রীতিমতো অবাক তিনি। এই গবেষণার কারণে ফোন বিল দিতে গিয়ে রীতিমতো ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খালি হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিলো তার।

রাশিয়া ও কাজাখস্থান থেকে পাখিগুলোর গতিপথের উপর নজর রাখা শুরু করেন তিনি। কিন্তু মুশকিল হল পরিযায়ী এই ঈগল পাখিগুলোর মধ্যে একটি নারী ঈগল শুধু রাশিয়া ও কাজাখস্থানের সীমান্ত পর্যন্ত উড়েই ক্ষান্ত হয়নি।সে সুদূর আফগানিস্তান ও ইরান পর্যন্ত ভ্রমণ করেছে। তাতেই বিপদে পড়েছেন বিজ্ঞানী।

কারণ, দেশের ভেতর ফোন বিল একরকম। দেশের বাইরে গেলে রোমিং চার্জ আরোপ করে বিশ্বের সব মোবাইল ফোন কোম্পানি। তাতে কাজাখস্তানে এসএমএস খরচ হিসেবে দিতে হয় ২ থেকে ১৫ রুবল পর্যন্ত। কিন্তু ইরান থেকে রোমিং চার্জসহ বিল দাঁড়ায় ৪৯ রুবল।

উপায়ান্তর না দেখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অর্থসহায়তা চেয়ে আবেদন করেন তিনি।সেখান থেকে এক লাখ রুবল পর্যন্ত অর্থ উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে লোকজন এই ক্যাম্পেইনের নাম দিয়েছে ‘টপ আপ দ্যা ঈগল মোবাইল’।

তবে শেষ পর্যন্ত ওই বিজ্ঞানীর সহায়তায় এগিয়ে এসেছে ফোন কোম্পানি 'মেগাফোন'। তারা প্রথম যে বিল তৈরি হয়েছে তা মওকুফ এবং এ গবেষণায় ভবিষ্যৎ বিলে কম খরচ ধার্য করার ঘোষণা দিয়েছে।

বিজ্ঞানীরা জানান, স্টেপ প্রজাতির এ ঈগল মূলত রাশিয়া ও মধ্য এশিয়ায় বাস করে। এরা সাইবেরিয়া ও কাজাখস্তানে বংশবিস্তার করে এবং শীত মৌসুমে দক্ষিণ এশিয়ার দিকে উড়ে আসে।

শুধু একটি পাখির কারণে যদি এমন পকেট খালি হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয় তাহলে ১৩টি পাখি যদি ইরান গিয়ে পৌঁছুত তাহলে কী ঘটতো সেটি ভেবে দেখুন তো।

সূত্র: বিবিসি


ঢাকা, সোমবার, অক্টোবর ২৮, ২০১৯ (বিডিলাইভ২৪) // রি সু এই লেখাটি ৩৫০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন