সর্বশেষ
মঙ্গলবার ২০শে শ্রাবণ ১৪২৭ | ০৪ আগস্ট ২০২০

মত্ত তরুণীর কাণ্ডে বিমানের জরুরি অবতরণ

রবিবার, জানুয়ারী ১২, ২০২০

12_0.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

মত্ত এক তরুণীর কাণ্ডে জরুরি অবতরণ করেছে একটি বিমান। শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটলেও রোববার তা প্রকাশ্যে এসেছে। কলকাতার দমদমে নেতাজি সুভাস চন্দ্র বোস বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করে বিমানটি। 

ঘটনার বিস্তারিত জানিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, বিমান তখন মাঝ আকাশে। হঠাৎই এক তরুণী যাত্রী বিমান সেবিকাকে ডেকে হাতে একটি চিরকুট দেন। দিয়ে বলেন, এটা ক্যাপ্টেনকে গিয়ে দিন, এখনই। চিরকুট হাতে পেয়ে, তা খুলে পড়ে পাইলটের তো চক্ষু চড়কগাছ। লেখা রয়েছে— ‘আমার শরীরের মধ্যে বোমা ভরে এনেছি’।

পাইলট সঙ্গে সঙ্গেই কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। কলকাতায় ফিরে যাওয়ার জরুরি অনুমতি চান। কলকাতা থেকে মুম্বাইগামী এয়ার এশিয়ার একটি বিমানে এই ঘটনা ঘটে। রাত ১০টা ১০ মিনিটে কলকাতার মাটি ছেড়ে ওড়া বিমান ফের কলকাতায় ফিরে আসে রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ।

নিরাপত্তার স্বার্থে বিমানবন্দরের মূল ভবনের থেকে দূরে, বিচ্ছিন্ন একটি জায়গায় বিমানটিকে রাখা হয়। একে একে ওই তরুণী-সহ ১১৪ জন যাত্রীকে নামিয়ে আনেন কেন্দ্রীয় শিল্প নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। তরুণীকে আলাদা করে তল্লাশি শুরু করেন সিআইএসএফের মহিলা কর্মীরা। কিন্তু কোনও বিস্ফোরক বা সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি তার শরীরে। বিমানেও আলাদা করে তল্লাশি করা হয়। সেখানেও পাওয়া যায়নি কিছুই।

প্রাথমিক তদন্তের পর সিআইএসএফ এবং বিধাননগর পুলিশের কর্তারা নিশ্চিন্ত হন যে, বোমার ভুয়ো আতঙ্কই ছড়িয়েছেন ওই যাত্রী। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ এনএসসিবিআই থানার হাতে তুলে দেন ওই যাত্রীকে। রাতেই গ্রেফতার করা হয় সল্টলেকের বাসিন্দা বছর তেইশের ওই তরুণীকে।

প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, মাত্রারিক্ত মদ্যপান করে বিমানে উঠেছিলেন ওই তরুণী। মদের ঝোঁকেই বোমার আতঙ্ক ছড়ান। সল্টলেকের বিএফ ব্লকের বাসিন্দা ওই তরুণী বিবিএর ছাত্রী। বাবা ব্যবসায়ী।


ঢাকা, রবিবার, জানুয়ারী ১২, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ৫৯০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন