সর্বশেষ
সোমবার ১৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৮ | ২৯ নভেম্বর ২০২১

ভারতে রং ফর্সার বিজ্ঞাপনে কঠিন সাজার প্রস্তাব

শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ৭, ২০২০

fairness-1.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

বিজ্ঞাপন প্রচারের বিষয়ে আইনের খসড়া সংশোধনীর প্রস্তাব এনেছে ভারতের স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, খসড়া সংশোধনী প্রস্তাবে ওই আইনের আওতায় বেশ কিছু রোগ, সমস্যা ও দুরবস্থার বিষয় বিবেচনা করার কথা বলা হয়েছে। প্রস্তাবে বলা হয়, ৭৮টি রোগ, সমস্যা ও দুরবস্থার ক্ষেত্রে ‘জাদুকরী উপশমের’ কথা বলে বিজ্ঞাপন দেওয়া যাবে না।

প্রস্তাবে অবজেকশনেবল অ্যাডভারটাইজমেন্টস অ্যাক্ট ১৯৫৪-এর সংশোধনী এনে কিছু আপত্তিকর বিজ্ঞাপন প্রচারের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫ বছরের কারাদণ্ড ও ৫০ লাখ রুপি পর্যন্ত জরিমানার বিধান রাখতে বলা হয়েছে।

এসবের মধ্যে রয়েছে রং ফর্সা করার, যৌন ক্ষমতা বাড়ানো, তোতলানো দূর করা, নারীদের প্রজনন অক্ষমতা সারিয়ে তোলা, চুল রং করার ওষুধবিষয়ক বিজ্ঞাপন।

যৌন সক্ষমতা বৃদ্ধি, ত্বকের রেখা ও বয়সের ছাপ দূর করা, এইডস নিরাময়, চুলে রং করা, তোতলানোর সমস্যা সারিয়ে তোলা, নারীর প্রজনন অক্ষমতা দূর করার মতো ওষুধের বিজ্ঞাপনকে এই আইনের আওতায় আনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

প্রচলিত আইনে এ ধরনের অপরাধের প্রথম শাস্তি হলো ছয় মাসের কারাদণ্ড অথবা জরিমানা অথবা দুটিই। পরবর্তী সময়ে দোষী সাব্যস্ত হলে এক বছরের কারাদণ্ড বা জরিমানা অথবা দুটোই হতে পারে।

প্রস্তাবিত সংশোধনীতে এ ধরনের অপরাধের শাস্তি আরও বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। প্রস্তাবিত প্রথম শাস্তি হলো, দুই বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড ও ১০ লাখ রুপি জরিমানা। পরবর্তী সময়ে কারাদণ্ডের মেয়াদ ৫ বছর পর্যন্ত বাড়তে পারে। জরিমানা ৫০ হাজার রুপি পর্যন্ত হতে পারে।

মন্ত্রণালয় বলছে, সময় এবং প্রযুক্তির বদলের কারণে এই সংশোধনীর প্রস্তাব আনা হয়েছে। জনসাধারণ এবং অংশীদারদের কাছ থেকে এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নোটিশ জারির ৪৫ দিনের মধ্যে তাদের মতামত দিতে হবে।


ঢাকা, শুক্রবার, ফেব্রুয়ারী ৭, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ১০১৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন