সর্বশেষ
শনিবার ১৬ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ | ৩০ মে ২০২০

মুশফিককে নিয়ে সমাধানে পৌছেছে বিসিবি

রবিবার, ফেব্রুয়ারী ১৬, ২০২০

cricket-1572534939543-1579271372364.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :

পাকিস্তানে খেলতে না যাওয়ায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম টেস্টে মুশফিককে না নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোও টেস্ট দলে বারবার পরিবর্তনের কথা তুলে ধরেছিলেন সংবাদ সম্মেলনে।

বিসিবির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তমতো কাজ করছিলেন তারা। সর্বশেষ এপ্রিলে পাকিস্তানে খেলতে যাওয়ার শর্ত জুড়ে দেওয়ারও চেষ্টা হয়েছে। শেষ পর্যন্ত একটি হৃদ্যতাপূর্ণ সমাধানে পৌছেছে বিসিবি।

সাকিব আল হাসান নিষেধাজ্ঞায় পড়ে খেলার বাইরে। ইমরুল কায়েস প্রতিযোগিতায় নেই। মাহমুদুল্লাহ বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। সিনিয়র ক্রিকেটারদের মধ্যে বাকি থাকলেন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম। সব মিলিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াড গড়া নিয়ে হিমশিম খাওয়ার মতো অবস্থা জাতীয় দল নির্বাচকদের।

এ অবস্থায় মুশফিককে না ফেরালে ব্যাটিং লাইনআপ আরও নড়বড়ে হয়ে পড়ে। শনিবার তাই মুশফিককে বোঝাতে কক্সবাজার গেলেন দুই নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও হাবিবুল বাশার। দু'পক্ষের আলাপ শেষে স্বস্তি নিয়েই ঢাকায় ফিরেছেন নির্বাচকরা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ শুরুর আগে বিতর্ক চাপা দিতে পারা ভালো দিক।

মুশফিকের ফেরার টেস্টে মাহমুদুল্লাহ ছাড়াও বাদ পড়ছেন পেসার রুবেল হোসেন, আল-আমিন হোসেন। আল-আমিনের ইনজুরিতে আর রুবেলকে টেস্টে চায় না ম্যানেজমেন্ট। এ ছাড়া বিয়ের জন্য ছুটি নিয়েছেন সৌম্য সরকার। পাকিস্তানে খেলতে যাওয়া ১৪ জনের টেস্ট স্কোয়াড থেকে চারজনই থাকছেন না ঢাকা টেস্টে। বিসিএলের ভালো খেলায় বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের ফেরার সম্ভাবনা বেশি।

প্রধান নির্বাচক নান্নু জানান, হোম সিরিজেও চার পেসার রাখতে চান তারা। সৌম্য না থাকায় একজন বিকল্প ওপেনারও রাখতে হচ্ছে। এনামুল হক বিজয়, আফিফ হোসেন, ইয়াসির আলী থেকে একজনকে নেওয়া হবে। এক্ষেত্রে বিজয় ও ইয়াসির এগিয়ে। নির্বাচকরা চান বিজয়কে। কোচ ও অধিনায়ক ইয়াসিরকেও চাইতে পারেন।


ঢাকা, রবিবার, ফেব্রুয়ারী ১৬, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ৬৬০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন