সর্বশেষ
শুক্রবার ২০শে চৈত্র ১৪২৬ | ০৩ এপ্রিল ২০২০

স্যামসাংয়ের পৌষ মাস, অ্যাপলের সর্বনাশ

বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২০, ২০২০

MW-HT425_samsun_ZH_20191016133217.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

করোনাভাইরাসের প্রভাবে এ বছরের প্রথম প্রান্তিকের জন্য রাজস্বের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিল, তা পূরণ করার আশা করছে না অ্যাপল। চীনে বেশির ভাগ দোকান বন্ধ বা অপেক্ষাকৃত কম সময় ধরে চালু থাকায় অ্যাপলের পণ্যের বিক্রি হ্রাস পাবে বলে দাবি তাদের।

বিশ্লেষকদের অনুমান, প্রথম প্রান্তিকে স্মার্টফোনের বৃহত্তম বাজার চীনে চাহিদা অর্ধেকে নেমে আসতে পারে। যদিও আশা করা হচ্ছে, কারখানা এবং পণ্যের দোকানগুলো ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে। তবে অ্যাপলের এই সংকটে পরিষ্কার বোঝা যায়, চীনা অর্থনীতি করোনাভাইরাসে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। তা ছাড়া বন্ধ থাকা কারখানাগুলো পুনরায় চালু হতে শুরু করলেও কর্মীর অভাব এবং অন্যান্য সমস্যার কারণে উৎপাদন হার সীমিত রয়েছে।অ্যাপলের মতো একই অবস্থা চীনা স্মার্টফোন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান শাওমিরও। আর হুয়াওয়ে এ বিষয়ে এখনো মুখ খোলেনি। তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন, চীনভিত্তিক যন্ত্রাংশ সরবরাহকারীদের ওপর নির্ভরশীল হওয়ায় এর প্রভাব হুয়াওয়ের ওপরও পড়বে।

শুধু উৎপাদনই না, বিক্রির দিক থেকেও স্যামসাংয়ের ঝুঁকি কম। মূল কারণ চীনে স্যামসাংয়ের সেটের চাহিদা কম। ফলে অ্যাপল ও অন্যদের তুলনায় লোকসানের আশঙ্কা কম তাদের। স্যামসাংয়ের যন্ত্রাংশ সরবরাহের সঙ্গে যুক্ত এক ব্যক্তি বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, এমন প্রতিকূল পরিবেশে অ্যাপল ও অন্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায় স্যামসাং সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। তাই বলাই যায় করোনাভাইরাসের প্রভাবে স্যামসাংয়ের পৌষ মাস আর অ্যাপলের সর্বনাশ।


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ২০, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ১১৫৬ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন