সর্বশেষ
শনিবার ১১ই আশ্বিন ১৪২৭ | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

ধামইরহাট হাসপাতালের চিকিৎসা-সেবার মান ১০ গুন বেড়েছে

রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২৩, ২০২০

dd.jpg
নওগাঁ প্রতিনিধি :

নওগাঁর ধামইরহাটে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। মাত্র ৩ মাস আগেই এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চলতো মাত্র ৩ জন ডাক্তার দিয়ে। রোগীরা সেবা নিতে এসে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতো। সেই কষ্ট লাঘব হয়েছে ধামইরহাট উপজেলার ২ লক্ষাধিক সাধারণ মানুষের। এক সাথে ১৪ জন চিকিৎসক যোগদান করায় হাসপাতালের বহির্বিভাগে রোগী বেড়েছে প্রায় ১০ গুন। পাচ্ছে পর্যাপ্ত সরকারী ঔষুধ, কমিউনিটি ক্লিনিক গুলোতেও হচ্ছে নরমাল ডেলিভারী। এছাড়াও উপজেলা পর্যায়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দিনে ৩০/৪০ জন রোগীর পরিবর্তে বর্তমান ৩ শতাধিক রোগী প্রতিদিন চিকিৎসা ও সেবা গ্রহণ করছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আবু ইসা মো. আরাফাত ইমাম বলেন, আগে রোগী যেখানে ২০/২৫ মেডিকেলে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতো, বর্তমান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শতভাগ রোগী ভর্তি আছেন ও চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেন, আগে ডাক্তার সংকট থাকায় রোগীর কল্যাণে তাদের রেফার্ড করা হলেও বর্তমানে একাধিক চিকিৎসক থাকায় সেইসব রোগীদের রেফার্ডও তেমন না করে হাসপাতালের চিকিৎসা দিয়ে তাদের সুস্থ্যতা দান করা হচ্ছে, নতুন এমবুলেন্স থাকায় গুরুত্বর রোগীদের উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত বাহিরে পাঠানো সম্ভব হচ্ছে এবং রক্ত সঞ্চালন কার্যক্রম অফিসে সময়ে চালু রয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন, আমরা চিকিৎসকগণ সেবার মন-মানসিকতা নিয়ে এ পেশায় যোগদান করেছি। ধামইরহাট উপজেলার সাধারণ মানুষের শতভাগ চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি, ডাক্তারদের নিয়ে নিয়মিত বিভিন্ন অভিজ্ঞতা বিনিময় ও তাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে ‘প্রভাতি শিক্ষায়তনিক প্রশিক্ষণ’ নামক প্রশিক্ষণ বাংলাদেশে প্রথমভাবে ধামইরহাটে চালু করেছি, এতে ডাক্তারগণের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে, কমউিনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপিদের নিয়ে নিয়মিত বৈঠক করে নরমাল ডেলিভারীর বিষয়ে বিশেষ তাগাদা প্রদান করেছি, আর এতসব কিছুর একটাই উদ্দেশ্যে, যাতে করে সরকারের লক্ষ ও উদ্যেশ্য বাস্তবায়ন এবং সাধারণ মানুষ যেন স্বাস্থ্য সেবা সঠিক ভাবে পায়।

এছাড়াও হাসপাতালে মেডিসিন, সার্জারী, গাইনী, অর্থোপেডিক্স, কার্ডিওলজি, এনেসথেসিয়া, চক্ষু ও নাক-কান গলাসহ ১০টি জুনিয়র কনসালটেন্টের মধ্যে ১০টি পদই শুন্য রয়েছে,যেগুলো থাকলে চিকিৎসা সেবার মান আরও ভাল হতো।


ঢাকা, রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২৩, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // রি সু এই লেখাটি ১৭৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন