সর্বশেষ
রবিবার ২২শে চৈত্র ১৪২৬ | ০৫ এপ্রিল ২০২০

বিশ্ব পানি দিবস

রবিবার, মার্চ ২২, ২০২০

132.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

আজ ২২ মার্চ, বিশ্ব পানি দিবস। এ বছরের পানি দিবসের প্রতিপাদ্য 'পানি এবং জলবায়ু পরিবর্তন'। জাতিসংঘ এ প্রতিপাদ্যের মধ্য দিয়ে জলবায়ু পরিবর্তন এবং বিশুদ্ধ পানি প্রাপ্যতা যে একে অপরের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত তাই মানুষের মাঝে তুলে ধরা হবে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণী দিয়েছেন।

বিশ্বে ক্রমাগত জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে পানির চাহিদাও দিন দিন বাড়ছে। সেই চাহিদা মেটাতে গিয়ে পরিবেশের ওপর চাপ পড়ছে। ভূগর্ভস্থ পানি উত্তোলনের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় তা পরিবেশের ওপরে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পানিই পৃথিবীকে বাসযোগ্য রেখেছে। নিরাপদ পানির অভাবে মানুষের স্বাস্থ্য ও সামগ্রিক জীবনযাত্রার ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। এ সমস্যা নিরসনে দরকার প্রকৃতিনির্ভর পানি ব্যবস্থাপনা।

ইউনিসেফের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ৯৮ ভাগ মানুষের আওতায় কোনো না কোনোভাবে পানির উৎস রয়েছে। তবে সুপেয় পানি পাচ্ছে মাত্র ৫৬ শতাংশ। এখনও ১৩ ভাগ পানিতে গ্রহণযোগ্য মাত্রার চেয়ে বেশি আর্সেনিকের উপস্থিতি রয়েছে। এ ছাড়া পাইপলাইন, টিউবওয়েল এবং পুকুরের পানিতে কোলাই ব্যাকটেরিয়ার মতো ক্ষতিকর অণুজীবের অস্তিত্ব থাকার কথাও বলা হয় বিভিন্ন সংস্থার প্রতিবেদনে। নানারকম বর্জ্যের কারণেই মূলত পানি দূষিত হয়ে পড়ছে।

জাতিসংঘের দেয়া এক তথ্য মতে, বিশ্বে বর্তমানে ২১০ কোটি মানুষ নিরাপদ সুপেয় পানি সেবা থেকে বঞ্চিত। ২০৫০ খ্রিষ্টাব্দ নাগাদ বিশ্ব জনসংখ্যা ২০০ কোটি বৃদ্ধি পাবে এবং বিশ্বব্যাপী পানির চাহিদা ৩০ শতাংশ বেড়ে যাবে। বর্তমানে বিশ্বে কৃষি খাতে ৭০ শতাংশ যার বেশির ভাগই সেচ কাজে, শিল্প খাতে ২০ শতাংশ বিশেষ করে জ্বালানি ও উৎপাদনে, গৃহস্থালি কাজে ১০ শতাংশ যার এক শতাংশেরও কম সুপেয় পানি হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।


ঢাকা, রবিবার, মার্চ ২২, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ১৪৭ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন