সর্বশেষ
শনিবার ১৬ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ | ৩০ মে ২০২০

২০ সেবিকার সঙ্গে 'বিলাসী' কোয়ারেন্টাইনে থাই রাজা

সোমবার, মার্চ ৩০, ২০২০

1.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

করোনাভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে বিশ্ব। একের পর এক দেশে করোনা ভয়াবহ আকার নিচ্ছে। কিন্তু আতঙ্কের মধ্যেই আরামের দিন কাটাচ্ছেন থাইল্যান্ডের রাজা মহা ভাজিরালংকর্ন। জার্মানির একটি বিলাসবহুল হোটেলের ‘সেলফ কোয়ারেন্টাইনে’ রয়েছেন তিনি। আর তার সঙ্গে রয়েছেন বেশ কয়েকজন পদস্থ কর্মকর্তা।

এখানেই শেষ নয়! তিনি তো রাজা। আর তাই রাজার মতোই থাকবেন, এটাই স্বাভাবিক। আর সেই কারণে থাইল্যান্ডের রাজা মহা ভাজিরালংকর্নের সঙ্গে রয়েছেন ২০ জন সেবিকা।জার্মান ট্যাবলয়েড পত্রিকা ‘বিল্ড’ জানিয়েছে, রাজা মহা ভাজিরালংকর্ন পুরো গ্র্যান্ড হোটেল সোনেনবিচল বুক করেছেন। ৬৭ বছর বয়সী এই রাজার সঙ্গে রয়েছেন ২০ জন সেবিকা।

জার্মান এই পত্রিকা জানিয়েছে, এসব ব্যক্তিগত সেবিকা ছাড়াও রয়েছেন অসংখ্য চাকরবাকর। তবে রাজার সঙ্গে তার চার স্ত্রীর কেউ আছে কিনা তা জানা যায়নি।থাইল্যান্ডের বাসিন্দারা বিদেশে বিলাসবহুল হোটেলে রাজার এভাবে আলাদা থাকার খবর পেয়ে বেজায় খেপেছেন। তারা থাইল্যান্ডের নিয়ম ভেঙে সামাজিক মাধ্যমে এর কড়া সমালোচনা করছেন।ইতোমধ্যে থাইল্যান্ডের টুইটারে ‘#হোয়াই ডু উই নিড আ কিং?’ ট্রেন্ড শুরু হয়েছে। সেদেশের এক মানবাধিকার কর্মী থাইল্যান্ডজুড়ে করোনাভাইরাসের ভয়ঙ্কর রূপ নেওয়ার সময় এভাবে রাজার জার্মানি ভ্রমণের প্রসঙ্গটি তুলেছেন। আর তা তোলার ২৪ ঘন্টার মধ্যে টুইটারে রাজার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে ওই প্রশ্নের ঝড় বয়ে যায়।

থাইল্যান্ডের আইনানুযায়ী, রাজাকে কেউ অপমান করলে কিংবা রাজার সমালোচনা করলে তার ১৫ বছরের জেল হতে পারে।থাইল্যান্ডে করোনা ভাইরাসে ১ হাজার ৩৮৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৭ জন। গোটা দেশের মানুষ তীব্র আতঙ্কিত। সেখানে দাঁড়িয়ে সে দেশের রাজার এমন কীর্তি স্বভাবতই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।


ঢাকা, সোমবার, মার্চ ৩০, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ৫৭৫ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন