সর্বশেষ
শনিবার ৩১শে শ্রাবণ ১৪২৭ | ১৫ আগস্ট ২০২০

ব্যর্থতার দায় নিয়ে নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ

নিজে লকডাউন বিধি ভাঙায় পদত্যাগ

বৃহস্পতিবার, জুলাই ২, ২০২০

image.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সরকারের পদক্ষেপ সমালোচিত হওয়ায় ও নিজে লকডাউন বিধি ভাঙায় পদত্যাগ করেছেন নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেভিড ক্লার্ক।

বৃহস্পতিবার নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন এটি নিশ্চিত করেছেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে নিউজিল্যান্ড সরকারের প্রতিক্রিয়া নিয়ে তীব্র সমালোচনা হয়। করোনাকালে লকডাউন ভেঙে সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে গিয়ে বিতর্কিত হন নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেভিড ক্লার্ক। 

যদিও করোনা নিয়ন্ত্রণে নিউজিল্যান্ড সফল একটি দেশ। দেশটিতে ১ হাজার ৫২৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং মৃত্যু হয়েছে ২২ জনের। গত মাসে সব কোভিড-১৯ বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হয়েছে এবং দেশকে করোনামুক্ত ঘোষণা করা হয়।

তবে সম্প্রতি সংক্রমণ শুরু হয়েছে নতুন করে। এছাড়া করোনা পরীক্ষা না করেই দুজনকে মুমূর্ষু বাবার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়। পরে তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এনিয়ে ক্লার্ক বলেছেন, ‘এ সিদ্ধান্তগুলো নেওয়ার ক্ষেত্রে আমি পুরো দায় নিচ্ছি এবং আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রী থাকার সময় তা হয়েছে।’

দেশে স্থানীয় কোনও সংক্রমণ নেই নিশ্চিত করে ক্লার্ক বললেন, এটাই তার সরে যাওয়ার সঠিক সময়।

লকডাউনে বেশ কিছু বিধি ভঙ্গ করেন ক্লার্ক। এপ্রিলে লকডাউনের প্রথম সপ্তাহে বাড়ি থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে পরিবারকে নিয়ে সৈকতে যান তিনি। এছাড়া সাইকেল চালাতে পাহাড়েও যান। পাশপাশি করোনাকালে সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ এবং রোগীদের আইসোলেশনের ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে নিউজিল্যান্ড সরকারের বিরুদ্ধে। তবে নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড বলেছে, সৈকতে যাওয়াটা আসলেই বিধি ভঙ্গ ছিল কিনা স্পষ্ট নয়।

আগেই পদত্যাগপত্র দিয়েছিলেন ক্লার্ক। কিন্তু করোনা সংকটের কারণে তা গ্রহণ করা হয়নি। 

শিক্ষামন্ত্রী ক্রিস হিপকিন্স স্বাস্থ্য দফতরের দায়িত্ব নেবেন, অন্তত সেপ্টেম্বরের জাতীয় নির্বাচন পর্যন্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রী থাকবেন তিনি।

 


ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জুলাই ২, ২০২০ (বিডিলাইভ২৪) // রি সু এই লেখাটি ৩৯২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন