সর্বশেষ
সোমবার ৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ১৯ নভেম্বর ২০১৮

মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক বেড়েছে সাড়ে ১৭ লাখ

মঙ্গলবার, জুন ৩০, ২০১৫

1380276975_1435685833.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
গত মে মাসে দেশে মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট গ্রাহক বাড়ার ধারা অব্যাহত রয়েছে। এ সময়ে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারী বেড়েছে সাড়ে ১৭ লাখ। আর মোবাইল ফোনের গ্রাহক বেড়েছে সাড়ে ১২ লাখেরও বেশি। বিটিআরসির সবশেষ হিসাবমতে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) মে মাস পর্যন্ত মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট গ্রাহকদের পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে। মোবাইল কোম্পানিগুলো থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বিটিআরসি প্রতি মাসে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে।
মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট গ্রাহক বৃদ্ধির প্রবণতাকে এ খাতের জন্য ইতিবাচক হিসেবেই দেখছে মোবাইল কোম্পানিগুলো। সামনের দিনগুলোতে এর হারও বাড়বে বলে তাদের প্রত্যাশা।

বিটিআরসির প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, মে মাস পর্যন্ত ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা চার কোটি ৭৪ লাখ ২১ হাজার, যা এপ্রিল মাসে ছিল ৪ কোটি ৫৬ লাখ ৭৭ হাজার। অর্থাৎ আগের মাসের তুলনায় ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে ১৭ লাখ ৪৪ হাজার। এর মধ্যে সবাই মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারী। এর সংখ্যা ১৭ লাখ ৫০ হাজার। তবে ওয়াইম্যাক্স ব্যবহারকারী গ্রাহকের সংখ্যা ১ লাখ ৯৮ হাজার থেকে কমে দাঁড়িয়েছে এক লাখ ৮৮ হাজার। আর আইএসপি ও পিএসটিএনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা পাঁচ হাজার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ৬১ হাজারে।

ইন্টারনেটে সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা হিসেব করার ক্ষেত্রে যেসব গ্রাহক সর্বশেষ ৯০ দিন ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তাদেরই বিবেচনায় নেওয়া হয়।

বিটিআরসির এই হিসেব অনুযায়ী এপ্রিল মাসে ১২ কোটি ৪৭ লাখ ৫ হাজার গ্রাহকের জায়গায় মে মাসে মোবাইল ফোন গ্রাহকের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ কোটি ৫৯ লাখ ৭১ হাজার। এক মাসে গ্রাহকসংখ্যা বেড়েছে ১২ লাখ ৬৬ হাজার। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক বেড়েছে রবির। ৫ লাখ ১৪ হাজার গ্রাহক বেড়ে তাদের গ্রাহকসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৭১ লাখ ৪৪ হাজারে।

এ হিসেব অনুযায়ী গ্রাহকসংখ্যার দিক থেকে মে মাসেও দেশের শীর্ষ মোবাইল অপারেটর হিসেবে জায়গা ধরে রেখেছে গ্রামীণফোন। এক মাসে তাদের ৪ লাখ ৮৫ হাজার গ্রাহক বেড়ে গ্রাহকসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ কোটি ২৮ লাখ ৩৯ হাজারে। গ্রাহকসংখ্যার দিক থেকে দ্বিতীয় বৃহত্তম অপারেটর হিসেবে জায়গা ধরে রেখেছে বাংলালিংক। ৬০ হাজার গ্রাহক বেড়ে তাদের মোট গ্রাহকসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ২১ লাখ ৪ হাজারে।

অন্যদিকে গ্রাহক কমার ধারা অব্যাহত রয়েছে সিটিসেলের। এ মাসেও তাদের গ্রাহক কমেছে ২৩ হাজার। মাস শেষে তাদের গ্রাহকসংখ্যা ১২ লাখ ৩০ হাজার। আরেক অপারেটর এয়ারটেলের গ্রাহকসংখ্যা ১ লাখ ৬৫ হাজার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৫ লাখ ১৬ হাজারে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন অপারেটর টেলিটকের গ্রাহক অবশ্য এ মাসে ৬৫ হাজার বেড়েছে। তাদের গ্রাহকসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪১ লাখ ৬১ হাজার।

মোবাইল অপারেটর রবির ভাইস প্রেসিডেন্ট ইকরাম কবীর ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোনের গ্রাহক বৃদ্ধির বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন। তিনি মনে করেন রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও ব্যবসা সহায়ক পরিবেশের কারণে টেলিযোগাযোগ খাতে প্রবৃদ্ধি হচ্ছে। রবির বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, গ্রাহকদের জন্য উপযোগী প্যাকেজ থাকার কারণে গ্রাহকসংখ্যা বাড়ছে। এ ছাড়াও মানসম্মত টেলিযোগাযোগ সেবা নিশ্চিত করতে রবির নিরন্তর চেষ্টা গ্রাহক বৃদ্ধির মূলমন্ত্র।

ঢাকা, মঙ্গলবার, জুন ৩০, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // এম এস এই লেখাটি ৭৯৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন