সর্বশেষ
রবিবার ১২ই আশ্বিন ১৪২৭ | ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটিং মেসেজ ডিলিট করলেই শাস্তি!

সোমবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৫

1136253327_1442847154.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
হোয়াটস অ্যাপ-এ ব্যক্তিগত চ্যাট শেষে যাবতীয় মেসেজ তড়িঘড়ি মুছে ফেলেন তো? ব্যক্তি স্বাধীনতা বজায় রাখতে কোনও নির্দিষ্ট মেসেজ রাখতে চান না? ভারতীয়দের সে সুখ আর বেশি দিন নেই। খুব শিগগিরই হোয়াটস অ্যাপ, গুগল হ্যাংআউট-এ করা চ্যাট ডিলিট করলে বেকায়দায় পড়তে হবে। হতে পারে মোটা অঙ্কের জরিমানা কিংবা অন্য কোনও শাস্তি। নয়া নীতি শুরু করতে চলেছে ভারত সরকার। নয়া আইনের সার কথা হলো, হোয়াটস অ্যাপ, গুগল হ্যাংআউট-এর মেসেজ চাইলেই ডিলিট করা যাবে না।

ইতোমধ্যেই ন্যাশনাল এনক্রিপশন পলিসি-র খসড়া প্রকাশ করে দিয়েছে দেশটির সরকার। সেই খসড়া অনলাইনে দিয়ে দেওয়া হয়েছে জনসাধারণের মতামত জানতে চেয়ে। যদি নয়া নীতি লাগু হয়ে যায় তাহলে কী হবে?

কেন্দ্রের বক্তব্য, দেশের নিরাপত্তার জন্যই এই নীতি চালু করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। খসড়া নীতি অনুযায়ী, এনক্রিপশন টেকনোলজি ব্যবহার করে গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ স্টোর করতে সুবিধা হবে। সরকারের। নয়া এনক্রিপশন পলিসি চালু হয়ে গেলে গুগল, হোয়াটসঅ্যাপ-কে ওই নীতি মানতেই হবে বলে সাফ জানিয়েছে দিয়েছে কেন্দ্র। এনক্রিপশন পলিসি-তে প্রত্যেক নাগরিককে হোয়াটস অ্যাপ ও গুগল হ্যাংআউট-এর যাবতীয় মেসেজ কমপক্ষে ৯০ দিন পর্যন্ত রাখতেই হবে। যদি আপনি ৯০ দিনের মধ্যে মেসেজ ডিলিট করে দেন, সেক্ষেত্রে নিরাপত্তার খাতিরে আপনার মেসেজ যদি সরকার দেখতে চায়, আর আপনি যদি মেসেজগুলি না দেখাতে পারেন, তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খসড়া নীতিতে আরও বলা হয়েছে, শুধু হোয়াটস অ্যাপ বা গুগল হ্যাংআউট-এর ক্ষেত্রেই নয়, অনলাইন সংস্থাকেও ক্রেতার দেওয়া যাবতীয় তথ্য স্টোরেজে রাখতে হবে ৯০ দিনের জন্য। কেন্দ্রের এনক্রিপশন নীতি অ্যান্ড্রয়েডে ভার্সন সাপোর্ট করে।

ঢাকা, সোমবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // এম এস এই লেখাটি ৪২৫৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন