সর্বশেষ
বুধবার ৮ই ফাল্গুন ১৪২৪ | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

গৃহসজ্জার কিছু গুরুত্বপূর্ণ দিক

সোমবার ২৪শে অক্টোবর ২০১৬

251447085_1477292520.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
পাখিরা যেমন নীড়ে ফিরে, তেমনিভাবে আমরাও ফিরে যাই আপন আলয়ে। নিজের বাড়ি সবারই প্রিয় জায়গা। আর প্রিয় জায়গায়ই থাকে প্রিয় একটি ঘর। নিজের ঘর। তা যেমনই হোক না কেন। ঘরটা হয় খুবই আপন।

সবাই চায় নিজের ঘরটাকে একটু আলাদাভাবে সাজাতে, নিজের মতো গোছাতে। নিজের ঘর নিজের মতো সাজানোতেই স্বস্তি। কিন্তু তারপরও কিছু ছোট বিষয় মাথায় থাকলে ঘরটা আরও সুন্দর হয়ে উঠতে পারে। গৃহসজ্জার কিছু গুরুত্বপূর্ণ দিক-

গৃহসজ্জা:
১। কোন ছোট ঘরকে বড় দেখতে হলে আপনি ঠিক জানালার বিপরীত দিকের দেয়ালজোড়ায় আয়না লাগাতে পারেন। এতে জানালার আলো আয়নাতে প্রতিফলিত হয়ে ঘরকে বড় দেখতে এবং আলোকিত করতে সাহায্য করে।

২। ঘরের উঁচু ছাদকে নীচু দেখাতে হলে ঘরের দেওয়াল অপেক্ষা গাঢ় শেড ছাদে লাগাতে পারেন।

৩। ঘরের নীচু ছাদকে উঁচু দেখাতে হলে দেওয়ালের সঙ্গে মানানসই হালকা রং লাগাতে পারেন।

৪। প্রসাধনের জন্য আয়নার উপরে আলো না লাগিয়ে আয়নার ঠিক দুপাশে আলো লাগান তাহলে মুখে সমানভাবে আলো পরবে।

৫। ছবির বদলে দেওয়ালে আপনি সুন্দর কারুকাজ করা কাপরের বড় টুকরো অথবা যে কোন ওয়াল-হ্যাঙ্গিং ও টাঙাতে পারেন।

৬। ঘরকে আরও আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য বারান্দায় ফুলের টব সাজাতে পারি। তাতে প্রকৃতির একটা ছোয়া থাকবে ঘরে।

৭। ঘরে বাহারি ধরণের ফুল ব্যাবহার করতে পারি। তাতে ঘরের সৌন্দর্য বাড়বে।

৮। এমনভাবে আসবাবপত্র তৈরি করা উচিৎ যাতে প্রতিটি আসবাবপত্রের মধ্যেই যথেষ্ট পরিমান স্টোরেজ স্পেস থাকে।

৯। খাবার টেবিল চৌকো এবং গোল ছাড়াও ডিম্বাকৃতি বা কোণাযুক্ত তৈরি করতে পারেন, এতে একঘেয়েমির হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

১০। রান্নাঘরে রান্নার জিনিসপত্র ছাড়াও দেওয়ালে একটি ঘড়ি টাঙাতে ভুলবেন না। কারন রান্নার সময় টাইম দেখাটা খুবই খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

১১। ঘরে মানানসই রং-বেরঙ্গের পর্দা ব্যবহার করতেন পারেন যাতে ঘরের ভেতরটাতে একঘেয়েমি ভাব না আসে।

১২। সুইচবোর্ড সবসময় দরোজার পাশে লাগানো ভালো।

১৩। সিঁড়ির উপরে এবং নিচে টুওয়ে সুইচ লাগানো ভালো।

ঢাকা, সোমবার ২৪শে অক্টোবর ২০১৬ (বিডিলাইভ২৪) // জে এইচ এই লেখাটি 811 বার পড়া হয়েছে