bdlive24

রকমারি সাজে রূপায়িত সিঁড়ি

বৃহস্পতিবার ডিসেম্বর ০১, ২০১৬, ০২:৫২ পিএম.


রকমারি সাজে রূপায়িত সিঁড়ি

বিডিলাইভ রিপোর্ট: একটি ছোট্ট, ছিমছাম, সাজানো গোছানো বাড়ি। সেটি বহুতল হোক বা না হোক, তার অন্দরমহলে পা রাখলে চোখে পড়বেই সিঁড়ি। কারণ, বাড়ির ছাদ পরিষ্কার রাখতে বা সেখানে বাগান সাজাতে সিঁড়ি বেয়ে উপরে ওঠার প্রয়োজন হয়। তাই উপরে ঘর না থাকলেও সিঁড়ি রাখতে হয়। আর ঘরে প্রবেশ করলে সিঁড়ির দিকে সহজেই মানুষের নজর যায়। বাড়ির মানুষগুলির রুচি কেমন তারও পরিচয় বহন করে এই সিঁড়ি। তাই গোটা বাড়ির পাশাপাশি সিঁড়ির নকশা ও সজ্জায় গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন।

ট্রি স্টেয়ার
সিঁড়ির ধাপ যেমন হয় তেমনই রাখতে পারেন। বদল আনুন হ্যান্ডরেলে। সিঁড়ির শুরুতে হ্যান্ডরেলের গোড়ার দিকটা রাখুন গাছের মতো। এরপর সিঁড়ির ধাপ যত উপরের দিকে উঠবে সেদিকে হ্যান্ডরেলের ডিজ়াইন করুন গাছের শাখা প্রশাখার মতো। সেই অনুযায়ী তাতে রঙ করে সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলুন।

রেনবো হাউজ় স্টেয়ার
বাড়ির কমন প্যাসেজেই সাধারণত সিঁড়ি রাখা হয়। সেই সিঁড়িকে দৃষ্টি আকর্ষণীয় করে তোলা যেতে পারে রঙের ব্যবহারে। যেমন ধরুন, সিঁড়ির কয়েকটি ধাপ প্রথমে ভাগ করে নিলেন। এবার এক একটি ভাগে এক একটি রঙের প্রলেপ দিন। যদি রামধনুর সবকটি রং দেওয়া যায়, তাহলে দেখতে অসাধারণ লাগবে। ধাতু নির্মিত স্পাইরাল সিঁড়িতে ভিন্ন রঙের ব্যবহার বেশি ভালো লাগে।

স্টেয়ারকেস
সিঁড়ি বানাতে পারেন মার্বেল বা গ্রানাইট পাথর দিয়ে। সাধারণ সিঁড়ি হলে সেটি ভালো করে রং করিয়ে নিতে পারেন। তার উপর নকশা করা যেতে পারে। দেখে নেওয়া যাক ভিন্ন ধাঁচের সিঁড়ি।

স্টোরেজ স্টেয়ার
সিঁড়ির প্রিতিটি ধাপ হবে ছোটো ছোটো। ঠিক তার নীচের অংশে ধাপ বরাবর কাঠ দিয়ে আলাদা আলাদা তাক বানিয়ে নিন। অর্থাৎ সিঁড়ির নীচের অংশ ফাঁকা না রেখে তা শো-কেস বা বুক সেল্ফ হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। দেখতে গোছানো লাগেবে। স্পেস ম্যানেজমেন্টও হবে।

হ্যান্ডরেল
ধাতু বা কাঠ দিয়েও সিঁড়ি বানানো যেতে পারে। সিঁড়ির প্রতিটি ধাপ হবে ধাতু বা কাছের ফালি দিয়ে। নীচের অংশ থাকবে ফাঁকা। আর দুই ধারে সরু হ্যান্ডরেল না রেখে, কাঁচ দিয়ে নীচু গার্ড ওয়াল বানিয়ে নিতে পারেন। একটু অন্য ধরনের দেখাবে।

সিঁড়ের রেলিং খুবই গুরিত্বপূর্ণ বিষয়। সেটি বানাতে পারেন স্টিল, ফাইবার ও কাঠ দিয়ে। এখন কাচের রেলিংয়ের চল হয়েছে।  

শেপ ও কালার
বাড়িতে ইউ শেপ, এল শেপ বা সার্কুলার শেপের সিঁড়ি বানাতে পারেন। তার পাশের দেওয়ালে সেইমতো হালকা রং করালে ভালো লাগবে। তাতে পরিবেশ স্নিগ্ধ থাকবে।

সিঁড়ি সজ্জা
সিঁড়ি বানিয়ে তার পাশের দেওয়ালে মানানসই রং করালেন। এখানেই কিন্তু কাজ শেষ নয়। সিঁড়ি আরও আকর্ষণীয় করে তোলা যায়। কীভাবে? দেওয়ালে রাখুন ভালো ভালো ওয়াল পেন্টিং। ফোটোফ্রেমও রাখতে পারেন। অথবা টেরাকোটার আইটেমও রাখা যেতে পারে। ছোটো ছোটো পাতাবাহার গাছের টব রাখা যেতে সিঁড়িতে।

সিঁড়ি তো সাজালেন মনের মতো করে। সেটি কিন্তু প্রতিদিন নিয়ম করে পরিষ্কার করতে হবে। তবে সেই সজ্জা হবে আকর্ষণীয়। বজায় থাকবে শৌখিনতা। তাই খেয়াল রাখুন পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার দিকেও।


ঢাকা, ডিসেম্বর ০১(বিডিলাইভ২৪)// জে এইচ
 
        print



মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.