bdlive24

বিশ্বসেরা সাহসী নারীর অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলাদেশের শারমিন

বুধবার মার্চ ২৯, ২০১৭, ০৪:৫৯ পিএম.


বিশ্বসেরা সাহসী নারীর অ্যাওয়ার্ড পেলেন বাংলাদেশের শারমিন

বিডিলাইভ রিপোর্ট: বাল্যবিয়ে এবং জোরপূর্বক বিয়ের বিরুদ্ধে কাজ করা বাংলাদেশের ঝালকাঠির শারমিন আক্তার এ বছর ‘ইন্টারন্যাশনাল উইমেন অব কারেজ অ্যাওয়ার্ড’ পাচ্ছেন। মায়ের বিরুদ্ধে মামলা করে নিজের বাল্যবিয়ে ঠেকিয়ে আরোচিত হর শারমিন।

যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্প ও রাজনীতি বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি থমাস শ্যানন বুধবার তাকেসহ ১৩ নারীর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেবেন বলে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

মাত্র ১৫ বছর বয়সে জোরপূর্বক বিয়ে ঠেকিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার কিশোরীদের জন্য দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করায় এই বছর শারমিন আক্তারকে ‘সাহসী নারী’ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

২০১৫ সালের অগাস্টের ওই ঘটনায় শারমিন তার মা এবং ৩২ বছর বয়সী ‘হবু স্বামী’ প্রতিবেশী স্বপন খলিফার বিরুদ্ধে মামলাও করেছিলেন।

শারমিনের মা গোলনূর মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার জন্য চাপ দিয়েও রাজি করাতে পারেনি। এরপর মিথ্যা কথা বলে খুলনায় নিয়ে গিয়ে স্বপনের সঙ্গে মেয়েকে একঘরে আটকে রাখারও অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে।

পরদিন সেখান থেকে কৌশলে পালিয়ে গেলেও ধরা পড়ে যান শারমিন। এরপর তাকে ঝালকাঠিতে নিজের বাড়িতে আটকে রাখা হয়। ১৬ অগাস্ট শারমিন ফের বাড়ি থেকে পালিয়ে এক সহপাঠীকে নিয়ে থানায় গিয়ে মামলা করেন। পুলিশ গোলনূর ও স্বপনকে গ্রেপ্তার করার পর আদালত শারমিনকে দাদির জিম্মায় দেয়।

বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ এখনও বাল্যবিয়ের হারে অন্যতম শীর্ষ উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এ ধরনের বিয়ে লাখো কিশোরীর স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা ও শিক্ষায় হুমকি হয়ে দেখা দেয়, যা দেশগুলোর উন্নতিকেও ক্ষতিগ্রস্ত করে।

শারমিনের সাহসিকতার প্রশংসা করে এতে বলা হয়, “নিজের চেয়ে কয়েক দশক বেশী বয়সের একজনকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে শারমিন অসাধারণ সাহস ও আত্মবিশ্বাসের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন। দেখিয়েছেন নারী ও মেয়েদের কাছ থেকে সচরাচর প্রত্যাশা করা নীরবতা ভাঙ্গার সাহসও।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সাহসিকতার জন্য প্রশংসিত শারমিন বর্তমানে রাজাপুর পাইলট বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী এবং সমাজের ক্ষতিকর প্রথা বাল্যবিবাহ ও জোরপূর্বক বিয়ের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাতে তিনি ভবিষ্যতে একজন আইনজীবী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন।

শারমিনের সঙ্গে আরও যে ১২ নারীকে সাহসিকতার স্বীকৃতির পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে, তারা হলেন- বতসোয়ানার মালেবোগো মালেফে, কলম্বিয়ার নাতালিয়া পনসে দো লিয়ো, ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোর রেবেকা কাবুঘো, ইরাকের জান্নাত আল গাজি, নাইজারের আইশাতু ইসাকা উসমানে, পাপুয়া নিউ গিনির ভেরোনিকা সিমোগুন।

বিশ্বব্যাপী শান্তি, ন্যায়বিচার, মানবাধিকার, লৈঙ্গিক সমতা এবং নারীর ক্ষমতায়নের পক্ষে জোরালো ভূমিকা ও সাহসী পদক্ষেপের স্বীকৃতি হিসেবে ২০০৭ সাল থেকে এ পুরস্কার দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর।


ঢাকা, মার্চ ২৯(বিডিলাইভ২৪)// টি এ
 
        print


মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.