bdlive24

বাংলা সাহিত্যে নব্য ধারার প্রবর্তক শহীদুল জহির

মঙ্গলবার এপ্রিল ১৮, ২০১৭, ১০:০১ এএম.


বাংলা সাহিত্যে নব্য ধারার প্রবর্তক শহীদুল জহির

বিডিলাইভ ডেস্ক: বাংলা গদ্য সাহিত্যে যিনি স্বল্প পরিচিত অথচ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন তিনি হলেন শহীদুল জহির। বাংলা কথা সাহিত্যে নব্যধারার স্রষ্ঠা শহীদুল জহিরের রচিত গল্প ও উপন্যাসগুলি অন্যান্য সব সাহিত্যিকের থেকে স্বতন্ত্র। তার প্রথম গল্পগ্রন্থ 'পারাপার' মুক্তধারা থেকে প্রকাশিত হয় ১৯৮৫ সালে।

জন্ম:
শহীদুল জহির ১৯৫৩ সালের ১১ সেপ্টেম্বর পুরান ঢাকার নারিন্দায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা এ কে নুরুল হক ছিলেন একজন সরকারি কর্মকর্তা ও মা ছিলেন গৃহিনী। তার পৈতৃক বাড়ি ছিল সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার হাশিল গ্রামে।

ছাত্রজীবন:
শহীদুল জহির তার স্কুলজীবন শুরু করেছিলেন ঢাকার ৩৬ রাঙ্কিন স্ট্রিটের সিলভারডেল কেজি স্কুলে, পরবর্তীতে ঢাকা, ফুলবাড়ীয়া, ময়মনসিংহ, সাতকানিয়া ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্কুলে পড়েছেন। সাতকানিয়া মডেল হাই স্কুল থেকে এস.এস.সি পাশ করেন ও ঢাকা কলেজ থেকে এইচ.এস.সি পাশ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি ওয়াশিংটন ডিসির আমেরিকান ইউনিভার্সিটি ও বারমিংহাম ইউনিভার্সিটিতেও পড়ালেখা করেন।

কর্মজীবন:
শহীদুল জহির ১৯৮১ সালে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে সহকারী সচিব পদে যোগ দেন। ২০০৮ সালে তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে সচিব পদে কাজ করে গেছেন।

সাহিত্যকর্ম:
শহীদুল জহির তার জীবদ্দশায় মাত্র ৬ টি বই প্রকাশ করেছেন ।
সেগুলি হলো- পারাপার(১৯৮৫), জীবন ও রাজনৈতিক বাস্তবতা(১৯৮৮), সে রাতে পূর্ণিমা ছিল(১৯৯৫), ডুমুরখেকো মানুষ ও অন্যান্য গল্প(২০০০), ডলু নদীর হাওয়া ও অন্যান্য গল্প(২০০৪) ও মুখের দিকে দেখি (২০০৬)।

তার মৃত্যুর পর প্রকাশিত হয়- আবু ইব্রাহীমের মৃত্যু(২০০৯) এবং ছোটগল্প ও উপন্যাস নিয়ে দুই খণ্ডের বই প্রকাশিত হয়েছে। তিনি কিছু ইংরেজি গল্পও অনুবাদ করেছেন।

লাতিন আমেরিকার লেখকদের লেখার জাদু-বাস্তববাদের ছোঁয়া তার লেখায় রয়েছে। তাকে বাংলাদেশের গ্যাব্রিয়েল গারসিয়া মার্কেস বলা হয়। তার কিছু গল্পের কাহিনী মার্ক্সবাদের দৃষ্টান্ত বহন করে। তার অনেক গল্পে তিনি ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপট ব্যবহার করেছেন।

সম্মাননা:
শহীদুল জহির বাংলা কথা সাহিত্যে অসামান্য অবদান রাখার জন্য কাগজ সাহিত্য পুরস্কার, প্রথম আলো বর্ষসেরা বই ১৪১৫ পুরস্কার, আলাওল সাহিত্য পুরস্কার ও জেমকন সাহিত্য পুরস্কার লাভ করেন ।

মৃত্যু:
শহীদুল জহির ২০০৮ সালের ২৩ মার্চ ল্যাবএইড কার্ডিয়াক হসপিটালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তাকে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হয়।

ক্ষণজন্মা এ সাহিত্যিক ছিলেন প্রচার বিমুখ। পঞ্চান্ন বছর বয়সের জীবনে চেষ্টা করেছিলেন নিজের চিন্তা ভাবনাকে তার সৃষ্ট সাহিত্যকর্মে তুলে ধরতে।


ঢাকা, এপ্রিল ১৮(বিডিলাইভ২৪)// এস আর
 
        print

এই বিভাগের আরও কিছু খবর







মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.