সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ৭ই আষাঢ় ১৪২৫ | ২১ জুন ২০১৮

টিএসসির মাঠে ইফতারির মেলা

মঙ্গলবার, জুন ৬, ২০১৭

1968842439_1496749213.jpg
ঢাবি প্রতিনিধি :
সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা। দলে দলে বিভক্ত হয়ে টিএসসির সবুজ ঘাসের উপরে বৃত্তাকার হয়ে বসে আছে ছাত্র-ছাত্রীরা। পুরো মাঠে তিল ধারণের ঠাঁই নেই। মাঝখানে সাঁজানো হচ্ছে নানা রকম ইফতারি। ছোলা, মুড়ি, চপ, খেজুর, জিলাপি, বেগুনি, পিঁয়াজু, বুন্দিয়াসহ হরেক রকম ইফতারি। সারাদিনের তৃষ্ণা মেটানোর জন্য আছে লেবুর শরবত কিংবা আমের জুস। আরো আছে আপেল, কলাসহ নানা ফল। ইফতার সাজিয়ে আযানের জন্য অপেক্ষা। বন্ধুদের সাথে কথার ফাঁকে চোখ যায় ঘড়ির কাঁটার দিকে। গোটা টিএসসি ছাত্র ছাত্রীদের পদচারণায় মুখর।

ইফতারতে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে বসে নবীন প্রবীনের মিলনমেলা। বিভিন্ন গ্রুপ বা সংগঠনের ব্যনারে আয়োজন হয় এই ইফতার পার্টি। প্রথম রোজা থেকে শেষ রোজা পর্যন্ত চলতে থাকে এই আয়োজন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীদের পাশাপাশি প্রাক্তনরাও আসেন এই ইফতারিতে অংশ নিতে।

কথা হয় রোকেয়া হলের শিক্ষার্থী মারিয়া আক্তারের সাথে। তিনি বলেন, সারা দিন রোজা রেখে বন্ধুদের সাথে রোজা রাখার মজাই আলাদা। লোক প্রশাসন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী জাহাঙ্গীর কবির শরীফ বলেন, ইফতার না করলে যেমন রোজার পূর্ণতা আসেনা তেমনি ক্যাম্পাসে থাকা অবস্থায় টিএসসিতে ইফতার না করলে ইফতারের মজা পাওয়া যায়না।

টিএসসি ছাড়াও ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে ইফতারির আয়োজন করে শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গনে প্রায় দুই হাজার লোক একত্রে ইফতার করে। এছাড়া কার্জন হল, ডাকসু ক্যাফেটেরিয়া, সিনেট ভবন, হাকিম চত্বর এবং মল চত্বরসহ বিভিন্ন স্থানে ইফতারির অনুষ্ঠান লেগেই থাকে। আন্তরিকতা ও সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশ ইফতার মুহূর্তকে প্রাণবন্ত ও আকর্ষনীয় করে তোলে।

ইফতারির যোগান দিতে ক্যাম্পাসজুড়ে বসছে ভাসমান দোকান। মূলত টিএসসি, সোহরাওয়ার্দী উদ্যোনের প্রধান গেট, ছবির হাটের গেট, বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি চত্বর, মিলন চত্বর, রোকেয়া হলের গেট, শামসুননাহার হলের গেট ও ডাসের সামনে দেখা যায় ইফতারির পসরা। বিকাল থেকেই জমজমাট হয়ে উঠে দোকানগুলো।

এদিকে, ক্যাম্পাসে ইফতারের আরেকটি দিক হলো পথশিশু এবং ছিন্নমূল মানুষেরা। ইফতার শুরু হওয়ার সাথে সাথেই হাতে বাটি অথবা পলিথিন ব্যাগ নিয়ে সবার নিকট ছুটে গিয়ে খাবার সংগ্রহ করে। এরপরে মাঠের এক কোণে বসে মনের আনন্দে সে ভক্ষণ করবে। রমজানের পুরো মাস জুড়ে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক বিভিন্ন সংগঠনগুলোও ক্যাম্পাসে ইফতারের আয়োজন করে। সবার স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি এটিকে প্রাণবন্ত করে তুলে।

ঢাকা, মঙ্গলবার, জুন ৬, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস এইচ এই লেখাটি বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন