bdlive24

শিক্ষা খাতে স্বতন্ত্র বাজেট দাবি ঢাবির বাজেট বিশেষজ্ঞদের

শুক্রবার জুন ০৯, ২০১৭, ০৭:৫৮ পিএম.


শিক্ষা খাতে স্বতন্ত্র বাজেট দাবি ঢাবির বাজেট বিশেষজ্ঞদের

ঢাবি প্রতিনিধি: জাতীয় বাজেটে শিক্ষা খাতে বরাদ্দকে অন্যান্য খাত থেকে আলাদা করে স্বতন্ত্রভাবে ঘোষণা দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর বাজেট এন্ড পলিসির গবেষকরা।

আজ শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কার্যালয় সংলগ্ন মিলনায়তনে বাজেট পরবর্তী পর্যবেক্ষণ, বিশ্লেষণ ও প্রস্তাবনায় তারা এ মত দেন। তারা বলেন, প্রতিবছরই শিক্ষা খাতের বাজেট দেওয়া হয় ধর্ম কল্যাণ, পরিবার কল্যাণ বা তথ্য প্রযুক্তি ইত্যাদি খাতকে সংযুক্ত রেখে। এই ধারা থেকে বেরিয়ে আসা প্রয়োজন। শিক্ষার সাথে আরও কয়েকটি বিষয় জড়িয়ে দেওয়ার জন্য শিক্ষাখাতে বাজেটের পরিমাণ অস্পষ্ট রয়ে যায়। এবার দেখা যাচ্ছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পকেও শিক্ষা বাজেটের মধ্যে ধরা হয়েছে।

বাজেটের সার্বিক দিক তুলে ধরেন সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপকএম আবু ইউসুফ। তিনি বলেন, ব্যাংক সঞ্চয়ী হিসাবে লেনদেন, হিসাব স্থিতি ও স্থায়ী আমানতের উপর আবগারী শুল্ক হার বৃদ্ধি পেয়েছে যা ক্ষুদ্র আমানতকারীদের জন্য হতাশার। এটা অনৈতিক। এর পুরোটাই তুলে দেওয়া উচিত। এই শুল্ক হার নিম্নবিত্তদের জীবনকে আরও কঠিন করে তুলবে। এর ফলে বিকল্প লেনদেন ও বিকল্প মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়ের প্রবৃত্তি বাড়বে, ছায়া অর্থনীতি সৃষ্টি হবে এবং অর্থনীতির বৈধ কাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

বাজেট ব্যয়কে কার্যকর করতে বর্তমান অর্থবছর জুলাই-জুন পরিবর্তন করে এপ্রিল-মার্চ করার আহ্বান জানান পরিচালক। তিনি বলেন, অর্থবছরের শেষের দিকে উন্নয়ন প্রকল্প সমূহের পর্যায়ক্রমিক সমাপ্তি করতে গিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। শেষ দুই মাসে সবচেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় দেখানো হয়। অথচ আমাদের আবহাওয়া ও জলবায়ুর প্রকৃতি অনুসারে মার্চ থেকে জুন পর্যন্ত সময় অপেক্ষাকৃত বেশি প্রাকৃতিক দুর্যোগপ্রবণ থাকে যা উন্নয়ন কাজে বাধাস্বরূপ। আর্থিক বাস্তবতার বিবেচনায় এবং বাংলা দিনপঞ্জির ঐতিহ্য অনুসরণ করে অর্থবছর এর সময়সীমা এপ্রিল-মার্চ করলে সার্বিকভাবে বাজেট আরও সফল বাস্তবায়ন হবে।

উচ্চশিক্ষা খাতে বাজেটের পরিমাণ স্বল্প বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, কোন বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা খাতে কী পরিমাণ অর্থায়ন করে তা তার উৎকর্ষের পরিচয় বহন করে। বিশ্বের বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের যে র‌্যাংকিং করা হয় সেখানে সবেচেয়ে বড় বিবেচ্য বিষয় থাকে গবেষণা, সেমিনার, প্রকাশনা ও শিক্ষা কার্যক্রমের পরিধি। কিন্তু দুভাগ্যজনকভাবে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের জন্য এ সকল খাতে বরাদ্দ অত্যন্ত স্বল্প।

এবারের বাজেটে নারীর জন্য উৎসাহমূলক কোনকিছু নেই বলে মনে করেন তিনি। সার্বিক উন্নয়নের জন্য নারীদের বিশেষ সুবিধা দেওয়া প্রয়োজন উল্লেখ কওে তিনি বলেন, নারীদের জন্য কোন কর ছার নেই, কর মুক্ত আয়সীমার বৃদ্ধিও ঘটেনি, সেই সাথে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য কোন বিশেষ পরিকল্পনা রাখা হয়নি। নারীর উন্নয়নে পৃথক নারী উন্নয়ন ব্যাংক চালু করা, নির্দিষ্ট মাত্রা পর্যন্ত ভ্যাট অব্যাহতি প্রাপ্তির সুযোগ, নারীদের ব্যাংক হিসাবে বিশেষ শুল্ক রেয়াত ও নারী উদ্যোক্তাদের জন্য সুদের হার ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৭-৮ শতাংশ করার পরামর্শ দেওয়া হয়।   

বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের অধ্যাপক তৈয়বুর রহমান বলেন, আমাদের দেশে ক্রমবৃদ্ধি হারে বাজেট ঠিক করা হয়। এ বছর যে বাজেট আছে পরের বছর তার থেকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বাড়িয়ে দেওয়া হয়। এই পদ্ধতি থেকে বের হয়ে আসতে হবে। শূন্যভিত্তিক বাজেট করতে হবে। যার যখন যত প্রয়োজন সেই মতে বাজেট বরাদ্দ হবে। যে সব মন্ত্রণালয় এই বছরের বরাদ্দ শেষ করতে পারেনি তাদেরকে আবার কেন সেই পরিমাণ বাজেট দেওয়া হবে? তাছাড়া গত বছর যেসব খাতের গুরুত্ব বেশি ছিল এবার তো তা নাও থাকতে পারে। সার্বিক বিবেচনায় নতুন গুরুত্বের খাত সামনে আসতে পারে।

বাজেট বিষয়ে সাংসদদের প্রশিক্ষণ জরুরি উল্লেখ করে তিনি বলেন, যাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে বাজেট বরাদ্দ দেওয়া হয় সেই সংসদ সদস্যদের অনেকেরই বাজেট বিষয়ে স্পষ্ট ও ভাল জ্ঞান নেই। বাজেট বিষয়ে তাদের দক্ষতা বাড়ানোর জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। সারা বছর পর্যায়ক্রমে তারা বাজেটের ওপর আলোচনা করবে। তা না হলে বাজেটের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা সম্ভব নয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সেন্টারের চেয়ারম্যান বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মোঃ কামাল উদ্দিন। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, আমরা এক বছর পর নিজেদেরকে কোথায় দেখতে চাই সেটাই বাজেটে পরিকল্পনা করা হয়। উচ্চশিক্ষার যথাযথ ব্যবস্থাপনা আমাদের এদেশে হচ্ছে না। অন্যদেশে যেখানে উচ্চশিক্ষা বাড়লে বেকারত্বের হার কমে সেখানে আমাদের দেশে উচ্চশিক্ষার হার বাড়া সত্ত্বেও বেকারত্ব বাড়ছে। গবেষণা খাতে বাজেটের অপ্রতুলতার কারণে গবেষকদের মধ্যে প্রতিযোগিতা হয় না বলেও মনে করেন তিনি।


ঢাকা, জুন ০৯(বিডিলাইভ২৪)// ই নি
 
        print



মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.