bdlive24

‘এই আশার আলো অচিরেই নিভে যাবে’

শনিবার আগস্ট ০৫, ২০১৭, ০২:৫৯ পিএম.


‘এই আশার আলো অচিরেই নিভে যাবে’

বিডিলাইভ রিপোর্ট: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে আপিল বিভাগের রায়ের কারণে বিএনপি মহাখুশি। তবে অতীতেও তাদের অন্য ইস্যু মরে গেছে। এই খুশি ভাবও অচিরেই মরে যাবে।’

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে শেখ কামালের জন্মদিনের আলোচনায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘কেউ কেউ ষোড়শ সংশোধনী বাতিল হওয়ায় মহাখুশি। এরা এভাবেই খুশি হয়। আনন্দের জগাই-মাধাই শুরু হয়েছে। কিছুক্ষণ আগে একজন বলে গেছেন, তারা (বিএনপি) আশার আলো দেখছেন। অন্য ইস্যু মরে গেছে। এই আশার আলো অচিরেই নিভে যাবে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আসুন। ঘটনায়, দুর্ঘটনায় ইস্যু খুঁজে লাভ নাই।’

কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ কারও বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র না করলেও বার বার এবং এখনও নানা ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে হচ্ছে তার দলকে।

“দু-একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা ভিন্নভাবে অনেকে ব্যাখ্যা দিচ্ছে। বাংলাদেশের সুকন্যা, যিনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করতে পেরেছেন, তাকে কেন সন্দেহ করতে হবে, তাকে কেন প্রশ্নবিদ্ধ করতে হবে?

“যে এতগুলো কাজ করতে পেরেছে, তাকে ভুল বুঝবেন না। রাজনৈতিক বাস্তবতায় আমাদের কৌশলের পরিবর্তন হতে পারে। কিন্তু এটা মনে রাখবেন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ শেকড়ের সঙ্গে আছে, শেকড়ের সঙ্গে থাকবে। শেকড় থেকে সরে যাওয়ার কোনো সুযোগ আমাদের নেই।” আওয়ামী লীগ তথা দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র রুখে দাঁড়াতে সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভারতে নরেন্দ্র মোদী যখন ক্ষমতায় এলো তখন সকাল বেলা ফলাফলের আগেই ভারতীয় দূতাবাসে ফুল দিয়েছিল। আমেরিকায় রেজাল্ট বের হওয়ার আগে বাংলাদেশে সকল ফুলের দোকানে ফুল বিক্রি হয়ে যায়, মিষ্টির দোকানে মিষ্টি বিক্রি হয়ে যায়, হিলারি ক্লিনটন আসবেন বলে, ক্ষমতায় বসবেন বলে। তারা মনে করেছিল হিলারি ক্ষমতায় এসে তাদের ক্ষমতায় বসাবে। কিন্তু ক্ষমতার মালিক জনগণ। জনগণ ছাড়া কাউকে কেউ ক্ষমতায় বসাতে পারে না।’

বঙ্গবন্ধুর ছেলে শহীদ শেখ কামাল প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘একেকজন ক্ষমতায় গেলে হয়ে ওঠেন বিকল্প পাওয়ার সেন্টার। কিন্তু শেখ কামাল তেমন মানুষ ছিলেন না। তার কোন হাওয়ার ভবন ছিল না। শেখ কামালের মধ্যে যেসব গুণাবলী ছিল তা তার সমাসায়িককালের কারও মধ্যে আমি দেখিনি।’

‘শেখ কামাল পরবর্তী নির্বাচনের জন্য কাজ করেননি। তিনি কাজ করেছিলেন পরবর্তী প্রজন্মের জন্য।’ তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা প্রসঙ্গে কাদের বলেন, ‘তুচ্ছ কারণে ৫৭ ধারার অপপ্রয়োগ বন্ধ করতে হবে। এই প্রবণতা আত্মঘাতী। এসব আত্মঘাতী কাজ আমাদের বন্ধ করতে হবে।’


ঢাকা, আগস্ট ০৫(বিডিলাইভ২৪)// আর কে
 
        print


মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.