সর্বশেষ
শনিবার ৯ই আষাঢ় ১৪২৫ | ২৩ জুন ২০১৮

কুবিতে শিবির সন্দেহে দুই শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের মারধর

বুধবার, আগস্ট ৯, ২০১৭

177708644_1502285318.jpg
কুবি প্রতিনিধি :
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই শিক্ষার্থীকে শিবির বলে মারধর করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। মারধরের পরে এক শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের জিজ্ঞাসাবাদের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও এক সহকারী প্রক্টর উপস্থিত হলেও অনেকটা নির্বাক থাকতে দেখা যায় তাদের।

আজ বুধবার দুপুরে শিবির বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের একটু দুরে দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করা হয়।

জানা যায়, সিলেটে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে আহত করার প্রতিবাদে বুধবার ক্যাম্পাসে শিবির বিরোধী বিক্ষোভ করে শাখা ছাত্রলীগ। বিক্ষোভ শেষে গণিত ৯ম ব্যাচের শিক্ষার্থী আব্দুর রহমানকে বাস থেকে নামিয়ে বিশ্বব্যিালয়ের ফটকের সামনে চায়ের দোকানের পাশে তাকে পিটাতে থাকে ছাত্রলীগ কর্মী বিদ্যুৎ (পদার্থ), এআইএস বিভাগের দ্বীন ইসলাম লিখন, শাহাদাৎ হোসেন সৌরভ, মাসুদসহ আরো অনেকে।

এ সময় পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি ইলিয়াস হোসেনসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী। মারধরের ঘটনার পরে ঐ শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের জিজ্ঞাসাবাদের সময় ঘটনা স্থলে আসে প্রক্টর মোঃ কাজী কামাল ও সহকারী প্রক্টর খলিলুর রহমান। পরে আহত আব্দুর রহমানকে সিএনজিতে করে পাঠিয়ে দেন প্রক্টর।

এ ঘটনার ঠিক পরপরই  ইংরেজী বিভাগের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী মনিরুল ইসলামকে সামাজিক বন বিভাগে শিবির বলে মারধর করে ছাত্রলীগ কর্মীরা। তবে যাদের মারা হয়েছে তারা কেউই ছাত্র শিবিরের সাথে সম্পৃক্ত নয় বলে সাংবাদিকদের জানান ভুক্তভোগীরা।

কেন তাদের মারা হল এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বলেন, ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা শিবির নামধারী হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে নাশকতা করবে তাদের বিষয়ে ছাত্রলীগ কঠোর অবস্থান নিবে।’

এ বিষয়ে প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মাদ কামাল উদ্দিনের সাথে কথা বললে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক ও সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদককে ধমক দেন।

ঢাকা, বুধবার, আগস্ট ৯, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // আর এ এই লেখাটি বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন