সর্বশেষ
বৃহঃস্পতিবার ৪ঠা শ্রাবণ ১৪২৫ | ১৯ জুলাই ২০১৮

ষড়যন্ত্র সম্পর্কে সতর্ক থাকতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

শুক্রবার, আগস্ট ১১, ২০১৭

1337967846_1502412635.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার রায় নিয়ে দলীয় নেতাদের চিন্তিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এ বিষয়ে ভেবেচিন্তে পরে করণীয় ঠিক করা হবে। তবে নানা ষড়যন্ত্র সম্পর্কে তিনি সতর্ক থাকতে নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে গণভবনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলী ও সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যদের যৌথ সভায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। দলের আইনজীবীদের বিষয়টি আরও পর্যালোচনা করার পরামর্শ দেন তিনি।

বার্তা সংস্থা বাসস জানায়, বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন বঙ্গবন্ধুর অবদান অস্বীকারকারীদের কঠোর সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, দেশে কিছু লোক আছেন, যারা সব সময়ই জাতির সামনে বিকৃত ইতিহাস তুলে ধরার চেষ্টা চালান।

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে একটি পর্যবেক্ষণের প্রতি ইঙ্গিত করে শেখ হাসিনা বলেন, কেউ কেউ এক ধাপ এগিয়ে বলেন, কোনো ব্যক্তির একক প্রচেষ্টায় দেশ স্বাধীন হয়নি। কিন্তু সবকিছুর পেছনে কারও উদ্যোগ থাকে, প্রেরণা থাকে, সাংগঠনিক ক্ষমতা থাকে এবং মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার শক্তি থাকে। সেই শক্তি ছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের। অবশ্যই সম্মিলিত প্রচেষ্টায়, তবে একজন না একজন নেতৃত্বে থাকে। তারপরও কিছু কিছু লোক থাকে, যারা এই বিকৃত ইতিহাসকে সামনে আনার চেষ্টা করে।

যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বঙ্গবন্ধুর একক অবদান অস্বীকার করে, তাদের প্রতি ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এ সত্যটি যারা উপলব্ধি করতে পারবে না, তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতায় আদৌ বিশ্বাস করে কি না সন্দেহ রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জাতিকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রেতাত্মারা এখনো বাংলাদেশে রয়ে গেছে।

বৈঠক সূত্র জানায়, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সভায় বলেন, রায়ের পর্যবেক্ষণ রাজনৈতিক চিন্তা থেকে দেওয়া হয়েছে। তার এই বক্তব্যের পর রায়ের সমালোচনা করে বক্তব্য দেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল মতিন খসরু ও আইনবিষয়ক সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম।

বৈঠকে জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, নানা ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা হচ্ছে। ভোট এলে এ ধরনের ষড়যন্ত্র হয়। তবে সব বাধা ঠেলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামী নির্বাচন করবে আওয়ামী লীগ, বিজয়ী হয়ে সরকার গঠনও করবে।

বৈঠক শুরুর আগে সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, স্বাধীনতাবিরোধীদের প্রেতাত্মারা এখনো বাংলাদেশে রয়ে গেছে, সুযোগ পেলেই তারা ছোবল মারার চেষ্টা করে। তিনি আরও বলেন, এ ব্যাপারে বাঙালি জাতিকে সতর্ক থাকতে হবে। তাদের বুঝতে হবে, কারা তাদের কল্যাণ করে, তাদের মঙ্গল করে এবং তাদের উন্নয়নের জন্য কাজ করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাঙালি জাতির দুর্ভাগ্য হচ্ছে যারা বাঙালি জাতির ভাগ্য পরিবর্তনের চেষ্টা করে, জাতির মুখে হাসি ফোটানোর জন্য কাজ করে এবং যখন মানুষ একটু সুফল পেতে চেষ্টা করে, তখনই ষড়যন্ত্র দানা বেঁধে উঠতে চেষ্টা করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সঠিক ইতিহাস চাপা দিয়ে রাখা যায় না, রাখতে পারে না। এটাই বাস্তবতা। ইতিহাস বিকৃত করে মানুষকে আর ভুল বোঝানো যাবে না।

ঢাকা, শুক্রবার, আগস্ট ১১, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জেড ইউ এই লেখাটি বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন