সর্বশেষ
সোমবার ৮ই মাঘ ১৪২৪ | ২২ জানুয়ারি ২০১৮

মালয়েশিয়ানদের প্রথম পছন্দ বাংলাদেশের তৈরি পোশাক

শনিবার ১২ই আগস্ট ২০১৭

1594307323_1502535687.jpg
প্রবাসী ডেস্ক :
সুলভ মূল্যে আরামদায়ক পোশাক খুঁজতে বাংলাদেশি পণ্যই মালয়েশিয়ানদের প্রথম পছন্দ। পোশাক কিনতে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ লেখাটাই গুরুত্ব পায় তাদের কাছে। রাজধানী কুয়ালালামপুরে পাইকারি বাজার হাংতুয়ায় প্রাসারিত হওয়া পোশাক ব্যবাসার সিংহভাগ-ই এখন বাংলাদেশিদের দখলে। গেলো কয়েক দশকে এই বাজারে গড়ে ওঠেছে প্রায় চার’শ বাংলাদেশির ব্যবসা। বাংলাদেশ থেকে পোশাক এনে  ব্যাবসা করছেন এসব ব্যাবসায়ীরা।

হাংতুয়ার এই পাইকারি বাজার থেকে ক্রয় করে মুলত সমগ্র মালয়েশিয়ায় পোশাকের ব্যবসা করছে ব্যবসায়ীরা। বাংলাদেশি পণ্যের গুণগত মান উন্নত ও দামে সস্তা হওয়ায় লাভ বেশী থাকে খুচরা বিক্রেতাদের। মালয় ও চাইনিজ ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় তাই প্রথমেই থাকে বাংলাদেশী পণ্য। দেশটির নামি দামি সব বিপণিবিতানগুলোতে শোভা পায় বাংলাদেশি তৈরি পোশাক।

তবে সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় ডলারের বিপরীতে রিঙ্গিতের মান কিছুটা কমলেও গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা অত্যন্ত কঠোর পরিশ্রম করে প্রতিযোগিতায় টিকে আছেন। তাছাড়া বাংলাদেশি দোকানগুলোর শোরুমের মালিক ও বিক্রয়কর্মীদের মালয় ভাষায় পারদর্শী হওয়ায় এবং সুন্দর ব্যবহারের ফলে ক্রেতারা সহজেই আকৃষ্ট হন। এখান থেকে কেনা পণ্য যাচ্ছে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ শহর, পূর্ব মালয়েশিয়া সাবাহ, সারওয়াক এবং সিঙ্গাপুর ও ইন্দোনেশিয়ায়।

এসব পণ্য বাংলাদেশের শিল্পাঞ্চল নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম এবং সাভারসহ বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিনিয়ত কন্টেইনারে করে মালয়েশিয়ায় আসছে। হাংতুয়ায় বাংলাদেশি মালিকানাধীন শো'রুম ও দোকান রয়েছে সাড়ে তিনশ'র বেশী। যাতে কাজ করছেন বাংলাদেশি ও মালয় নারী-পুরুষ কর্মীরা।

সম্প্রতি, এই ব্যবসাকে আরো এগিয়ে নিতে বাংলাদেশ গার্মেন্টস ট্রেড এ্যাসোসিয়েশন ইন মালয়েশিয়া বিজিটিএএম এর যাত্রা শুরু হয়েছে। মার্শাল পাভেলকে সভাপতি ও মুস্তাফিজ মুস্তাককে সাধারণ সম্পাদক করে গঠিত হয়েছে মালয়েশিয়া প্রবাসী পোশাক ব্যাবসায়ীদের এ সংগঠন। বাংলাদেশ সরকার ও মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের সহযোগীতা পেলে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের পোশাক শিল্পকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

দীর্ঘদিন ব্যাবসা করছেন ব্যাবসায়ী মনিরুজ্জামান মনির বলেন বাংলাদেশি পোশাক এখানকার মানুষের প্রথম পছন্দ। এই বাজারে আমরাই সেরা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ভিসাগত জটিলতার প্রভাব ব্যবসায় পড়ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ব্যবাসায়ী মার্শাল পাভেল বলেন বিচ্ছিন্নভাবে আমরা এখানে ব্যবসা করছি সমন্বিতভাবে করতে পারলে এই শিল্প থেকে মোটা অঙ্কের টাকা রাজস্ব আয় সম্ভব। তিনি বাংলাদেশে তৈরি পোশাক শিল্পকারখানা মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ এর নেতাদেরও এ ব্যাপারে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

ব্যবসায়ী নেতারা জানান, মালয়েশিয়া জুড়ে এমন মন্দার সময়েও তৈরি পোশাকের ব্যবসা ভালোই চলছে। তবে ভিসা সংক্রান্ত জটিলতার ফলে অনেক ব্যবসায়ী তাদের ব্যবসায়ীক কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে পরিচালনা করতে পারছেন না। ভিসা সমস্যা সমাধানে তারা মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছেন।



পোশাক ব্যবাসায়ীকদের এ কমিটিতে আছেন উপদেষ্ঠা মো: হোসেন ও মনিরুজ্জামান মনির, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল বারী, কোষাধ্যক্ষ মো. শাকিল, প্রচার সম্পাদক আবদুল বাতেন, উপ-প্রচার সম্পাদক কাজি তানভির আহমেদ, বিপ্লব, রোমান আলম, মামুনসহ প্রমুখ।


ঢাকা, শনিবার ১২ই আগস্ট ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি 18 বার পড়া হয়েছে