সর্বশেষ
সোমবার ১১ই আষাঢ় ১৪২৫ | ২৫ জুন ২০১৮

“শিল্পের বিপণন: বিপণনের শিল্প” শীর্ষক বিশেষ একাডেমিক বক্তৃতা অনুষ্ঠিত

শুক্রবার, আগস্ট ১৮, ২০১৭

322477336_1503069811.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
আজ শুক্রবার (১৮আগস্ট)  বিকাল ৫টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে শিল্পের বিপণন: বিপণনের শিল্প শীর্ষক সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বক্তব্য রাখেন দেশের বিশিষ্ট বিপণনতাত্বিক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় উপচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।

তিনি বলেছেন, আমরা যখন কোন পণ্য নিয়ে বাজারজাত করনের কাজ করি তখন বাজারের ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ি বাজারকে বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত করতে হবে । অনেক সময় একটি পণ্য বাজারজাত করার সময় উৎপাদন খরচের চেয়ে মার্কেটিং খরচ বেশি রাখা হয়। কারণ তখন সেটি বেশি গুরুত্ব বহন করে।

পণ্যবাজারে ছাড়ার সময় সুনির্দিষ্ট করতে হবে কাদের জন্য পণ্যটি বাজারে ছাড়া হবে। এর প্রধান টার্গেটেট ক্রেতা কারা বুঝতে হবে। একই সাথে সবার মন খুশি করার চিন্তা করলে সব এক সাথে নষ্ট হয়ে যাবে। কারণ একই সাথে সবার মন সন্তুষ্ট করা যায় না।

উদাহরন হিসেবে তিনি বলেন, বাজারের সবচেয়ে ভালো বইটি যে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হবে তা কিন্তু নয়। যদি সব কিছু সবাই বুঝেই যায় তাহলে এর মধ্যে ব্যতিক্রম কি? এর মধ্যে আলাদা কিছু যদি থাকে, নির্দিষ্ট মানুষেরা দেখে বুঝে কিনছেন, তাহলে বুঝতে হবে এর মধ্যে কিছু না কিছু আছে।

একটি পণ্য উৎপাদনের আগে মনে রাখতে হবে আপনার সামর্থ কত। যদি সামর্থ কম হয় আর আপনি সে সামর্থ গুরত্ব না দিয়ে মন মত কাজে লেগে যান তাহলে এমন হতে পারে যে মার্কেট ধরার আগেই আপনি মার্কেট থেকে ছিটকে পড়বেন। তাহলে সামর্থর সাথে সামঞ্জস্য রেখে পণ্য উৎপাদন করতে হবে। এটাকে বলে পছন্দ সীমিতকরণ প্রক্রিয়া।

পণ্য বাজারে ছাড়ার জন্য পণ্যের ব্রান্ডিং এর উপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি। অনেকেই মনে করেন উৎপাদন করলেই বোধহয় কাজ শেষ। উৎপাদন করলেই যে বিক্রি হয়ে যাবে বিষয়টা এমন না। আবার অনেকেই মনে করেন কম খরচে স্বাস্থ্যবান কিছু বাজারে ছাড়লেই যে তা বিক্রি হবে তাও কিন্তু ঠিক না।

কারণ পৃথিবীতে অনেক ভালো কিছুর ক্রেতা নেই। আবার পৃথিবিতে বিক্রি করা যাবে না এমন কোন জিনিস নেই। একটা ভালো জিনিসে ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়বে বিষয়টা তেমন না। আবার একটা খারাপ জিনিসও ইচ্ছা করলে বা চেষ্টা করলে বিক্রি করা যায়। উল্টাপাল্টা হলেই সৃজনশীল হওয়া যায় না। আবার সত্য কথা বলতে সৃজনশীল মানুষরা একটু উল্টাপাল্টা হয়। উল্টাপাল্টা হলেও তাকে আবার আমাদের দরকার আছে। কারণ তার যে সৃজশীলতা তা অন্য কেউ দিতে পারবে না। তার সৃজণশীলতার জন্য সব কিছু মেনে নিয়ে তাকে নিয়ে চলতে হবে। এর মধ্যে আবার কিছু আইডিয়া ফেলে দিতে হবে। আবর কিছু আইডিয়া নিয়ে কাজ শুরু করতে হবে।

একটি পণ্য বাজারজাত করতে যেয়ে প্রথমেই যদি আপনি পঁচা জিনিস নিয়ে কাজ শুরু করেন তাহলে প্রথমেই মার্কেট থেকে ছিটকে পড়ে যাবেন। সবশেষে একজন বিক্রেতা বা কোম্পানির মালিককে বুঝতে হবে পণ্যটি বাজাওে ছাড়ার জন্য সঠিক সময় কোনটি? ঠিক কোন সময় পণ্যটি বাজাওে ছাড়লে ক্রেতা পাওয়া যাবে। এরপর বুঝতে হবে ঠিক কোন পরিবেশে বা কোন অঞ্চলে পণ্যটি ছাড়লে ক্রেতাদের নজর কাড়বে। ভারতে যখন আইপিএল চলে তখন আসলে ভালো কোন সিনামা বাজারে আসে না। কারণ তারা বুঝে এখন সবাই ক্রিকেটে  ব্যাস্ত। তাই হয়তো ক্রিকেট মৌসমটা এড়িয়ে চলা হয়।

সংলাপে উপস্থিত ছিলেন মননের সভাপতি ড. সেলিম মোজাহার, কার্যনির্বাহী মাহবুব মাসুম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদের ডিন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নুর মোহাম্মদ, জবি ফিলম্ এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ চেয়ারম্যান জুনায়েদ আহমেদ হালিম, চলচ্চিত্র নির্মাতা মসিহ্ উদ্দীন সাকের, চিত্র সমালোচক মঈন উদ্দীন খালেদ, মিডিয়াব্যক্তিত্ব মহিদুল ইসলাম সাচ্ছু, জবি বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শরীফ সিরাজ প্রমুখ।

ঢাকা, শুক্রবার, আগস্ট ১৮, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // আর কে এই লেখাটি বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন