সর্বশেষ
সোমবার ১১ই আষাঢ় ১৪২৫ | ২৫ জুন ২০১৮

ইলিশের জিআই সনদ মৎস্য অধিদপ্তরের কাছে হস্তান্তর

শুক্রবার, আগস্ট ২৫, ২০১৭

574178971_1503636453.jpg
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
ভৌগোলিক নির্দেশক বা জিআই পণ্য হিসেবে জামদানির পর স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশের জাতীয় মাছ ইলিশ।

গত ৭ আগস্ট এই স্বীকৃতি পাওয়ার পর গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের হাতে এ সনদ তুলে দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তরের রেজিস্ট্রার মো. সানোয়র হোসেন।

এ সময় শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক উপস্থিত ছিলেন।

ভৌগলিক নির্দেশক (জিওগ্রাফিক্যাল ইন্ডিকেশন-জিআই) হচ্ছে- একটি প্রতীক বা চিহ্ন, যা পণ্য ও সেবার উৎস, গুণাগুণ ও সুনাম ধারণ ও প্রচার করে।

জানা গেছে, মৎস্য অধিদপ্তর পেটেন্ট ডিজাইন ও ট্রেডমার্ক অধিদপ্তরের কাছে রূপালি ইলিশের ভৌগোলিক নির্দেশক বা জিআই পণ্য হিসেবে নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে। ওই আবেদনের পর তা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরিপ্রেক্ষিতে এ বছরের ১ জুন গেজেট প্রকাশ করা হয়। আইন অনুসারে গেজেট প্রকাশিত হওয়ার দুই মাসের মধ্যে দেশে বা বিদেশ থেকে এ বিষয়ে আপত্তি জানাতে হয়। কিন্তু কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ বিষয়ে কোনো আপত্তি জানায়নি। সে অনুসারে এ পণ্য এখন বাংলাদেশের স্বত্ব।

উল্লেখ, ইলিশ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ। ওয়ার্ল্ড ফিশের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, বিশ্বের মোট ইলিশের ৬৫ শতাংশ উৎপাদিত হয় বাংলাদেশে। ভারতে ১৫ শতাংশ, মিয়ানমারে ১০ শতাংশ, আরব সাগর তীরবর্তী দেশগুলো এবং প্রশান্ত ও আটলান্টিক মহাসাগর তীরবর্তী দেশগুলোতে বাকি ইলিশ ধরা পড়ে। ইলিশ আছে—বিশ্বের এমন ১১টি দেশের মধ্যে ১০টিতেই ইলিশের উৎপাদন কমছে। একমাত্র বাংলাদেশেই ইলিশের উৎপাদন বাড়ছে।

ঢাকা, শুক্রবার, আগস্ট ২৫, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস এ এই লেখাটি ১২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন