bdlive24

হাউমাউ করে কাঁদছেন প্রতারিত হজযাত্রীরা

শনিবার আগস্ট ২৬, ২০১৭, ০৪:২০ এএম.


হাউমাউ করে কাঁদছেন প্রতারিত হজযাত্রীরা

বিডিলাইভ ডেস্ক: এজেন্সি ও মধ্যসত্বভোগী দালালদের কাছে প্রতারিত হজযাত্রীদের কান্না ও আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে হজ ক্যাম্প। কারো ভিসা হয়েছে টিকিট হয়নি, আবার কারো ভিসা টিকিট কোনোটিই হয়নি। অনেকের ভিসা টিকিট হলেও ফ্লাইট পাচ্ছেন না। আজ নয় কাল এভাবে অপেক্ষার প্রহর যেন ফুরায় না। অনেকেই অনাহার-অনিদ্রায় এবং মানসিক যন্ত্রণায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বিভিন্ন জেলা থেকে আসা হজ ক্যাম্পের ডরমিটরি ও নিচের ফ্লোরে আশ্রয় নেয়া হজযাত্রীরা চরম হতাশায় ভুগছেন।

হজযাত্রীরা বলছেন, কারো কারো কাছ থেকে ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা করে নেয়ার পরেও ফ্লাইট দেয়া হচ্ছে না। কোনো কোনো হজ এজেন্সির মালিক হজযাত্রীদের হজে পাঠানোর বিষয়টি অনিশ্চয়তার মাঝে ফেলে গা-ঢাকা দিয়েছে।

স্ত্রীকে নিয়ে একসঙ্গে পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশে সৌদি আরব যেতে চেয়েছিলেন আবদুল করিম। কিন্তু মধ্যসত্বভোগী এজেন্ট মো. আলাউদ্দিনের প্রতারণার শিকার হয়ে গত বছর হজে যেতে পারেনি দুজনের কেউই। এবছরও তাদের হজে যাওয়া প্রায় অনিশ্চিত। তাই মেয়ে মোছা. সাবিহা বারিকে নিয়ে হজ অফিস, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তিনি। এ দুজন ছাড়াও আলাউদ্দিনের প্রতারণার শিকার আরো ২২ জন। এই ২৪ জনকে অনিশ্চয়তার সাগরে ভাসিয়ে আলাউদ্দিন এখন পলাতক।

পাবনার লক্ষীপুর থেকে একসঙ্গে ১২০ জন হজ ক্যাম্পে এসেছে ৫-৬ দিনে আগে। এদের সবাই এ বি এম হজ এজেন্সির যাত্রী। ৫ দিন আগে ১২০ জনের ৪০ জন সৌদি চলে গেছেন। কিন্তু বাকি ৮০ জন ভিসা হাতে গত ৫-৬ দিন ধরে ক্যাম্পে ঘুরলেও এজেন্সির মালিক তাদের বিমানের টিকিট দেয়নি। আর কোনো যোগাযোগও করেনি। এদিকে এই ৮০ জন ক্যাম্পে ঘুরে ঘুরে কেঁদে বেড়াচ্ছেন। শুধু এরাই নয় এমন অসংখ্য ভুক্তভোগীর ভিড় এখন হজ ক্যাম্পে।

শেষ মুহূর্তে এমন নানা অভিযোগ নিয়ে হজযাত্রীরা জড়ো হচ্ছেন রাজধানীর আশকোনার হজ ক্যাম্পে। তবে তাদের এসব আহাজারিও কর্ণপাত করছে না হজ ক্যাম্প। উল্টো পাসপোর্ট, ভিসা ও টিকিট ছাড়া হজ ক্যাম্পে প্রবেশ না করার বিষয়েও নিষেধাজ্ঞা দেয়া আছে।

চলতি বছর হজ ফ্লাইট শুরুর পর থেকেই ফ্লাইট বাতিলসহ নানা ভোগান্তি শুরু হয় হজযাত্রীদের। আর সেই ভোগান্তি এবার শেষ দিকে এসে চরমে পৌঁছেছে। একের পর এক বাতিল হয়েছে হজ ফ্লাইট। এছাড়া ভিসা হওয়ার পরও এখনো অনেক হজযাত্রীর টিকিট কাটেনি হজ এজেন্সিগুলো।

হজ অফিস সূত্রে জানা যায়, এ বছর বাংলাদেশ থেকে মোট ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যাচ্ছেন। কিন্তু গতকাল(২৪ আগস্ট) পর্যন্ত ১ লাখ ৬ হাজার হজযাত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেন। ফলে এখনো ২১ হাজার হজযাত্রীর সৌদি আরব যাওয়া বাকি রয়েছে।

এছাড়া গত ২২ আগস্ট পর্যন্ত এক হিসাবে জানা যায়, প্রায় ১২ হাজার হজযাত্রীর বিমান টিকিট করেনি এজেন্সিগুলো। এর মধ্যে ৫৭টি এজেন্সির ১০ হাজার ১১ জন হজযাত্রীর মধ্যে মাত্র এক হাজার ২০৭ জনের টিকিট করা হয়েছে। আর ১৭টি এজেন্সির তিন হাজার হজযাত্রীর জন্য কোনো টিকিটই করা হয়নি।

২৬ আগস্ট শনিবার বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটে বেশ কিছু যাত্রী হজে যাবেন। অপরদিকে দুইদিন অতিরিক্ত হজ ফ্লাইট চালাতে সৌদি সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের দেনদরবার চলছে। আসছে ২৭ ও ২৮ আগস্ট ফ্লাইট পরিচালনা করতে চাইলে যাত্রীপ্রতি বাড়তি চার্জ গুনতে হচ্ছে এক হাজার রিয়াল (বাংলাদেশি মুদ্রায় ২২ হাজার টাকা)। এখন চার্জ মওকুফে সৌদি আরবস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের কূটনৈতিকরা সৌদি সরকারের স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র ও সিভিল অ্যাভিয়েশন মন্ত্রণালয়ে গিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করছেন। কিন্তু এখনো এ বিষয়ে কোনো কূল কিনারা হয়নি।

এছাড়া এজেন্সিগুলোর প্রতি আলাদা নির্দেশনা দিয়েছে আশকোনাস্থ হজ অফিস। বিভিন্ন এজেন্সি মালিকের কাছে পাঠানো নির্দেশনায় এজেন্সির ভিসাপ্রাপ্ত সব হজযাত্রীকে টিকিট নিশ্চিত করে জরুরি ভিত্তিতে সৌদি আরব পাঠানোর জন্য নির্দেশ দেয়া হয়। ভিসাপ্রাপ্ত কোনো হজযাত্রীকে সৌদি আরবে না পাঠালে ওই এজেন্সির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। এক্ষেত্রে এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল, জামানত বাজেয়াপ্তসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সূত্র: আরটিভি


ঢাকা, আগস্ট ২৬(বিডিলাইভ২৪)// কে এইচ
 
        print



মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.