সর্বশেষ
শনিবার ৬ই শ্রাবণ ১৪২৫ | ২১ জুলাই ২০১৮

যেসব লক্ষণে শনাক্ত করবেন ফুসফুস ক্যান্সার

মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭

2020339931_1505177468.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
ধূমপায়ী-অধূমপায়ী সবারই হতে পারে ফুসফুসের ক্যান্সার। নারী-পুরুষ উভয়ের মৃত্যুর কারণ এই রোগটি। এই রোগের সাথে লড়াই করে বেঁচে থাকার একটি উপায় হলো রোগের শুরুতেই একে শনাক্ত করতে পারা। এর প্রাথমিক কিছু উপসর্গ চিহ্নিত করতে পারলে তা আপনার জীবন বাঁচাতে পারে।

চলুন জেনে নেয়া যাক এমনই কিছু লক্ষণ-
 
# দীর্ঘস্থায়ী কাশি
কোনোভাবেই যাচ্ছে না কাশি, তাহলে ডাক্তার দেখানো জরুরী। এছাড়া খসখসে, ভাঙ্গা কণ্ঠস্বর আট সপ্তাহের বেশি থাকলে সেটাও চিন্তার বিষয়।
 
# নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া
খুব সহজেই দম ফুরিয়ে যাওয়া বা নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া, এমন কাজ করতে কষ্ট হওয়া যা আগে সহজ ছিল- এমন পরিস্থিতিতে আপনার বুঝে নিতে হবে কোনো সমস্যা আছে। ক্যান্সার ছাড়া অন্য কারণও থাকতে পারে এর পেছনে।
 
# ওজন এবং খাবারের রুচি কমে যাওয়া
হুট করে ওজন কমে যাওয়া খুবই খারাপ লক্ষণ। এর মানেই ফুসফুসের ক্যান্সার নয়, কিন্তু ব্যাপারটি এড়িয়ে যাবেন না। এর পাশাপাশি ক্ষুধামন্দা থাকার কারণ হতে পারে শরীরের কোথাও ক্যান্সার টিউমারের উপস্থিতি। এই ওজন কমাকে বলা হয় ক্যাচেক্সিয়া।
 
# বুকে ব্যথা
ফুসফুসের এলাকায় বুকে ব্যথা, বিশেষ করে ভারী কিছু ওঠানোর সময়ে, কাশি বা হাসার সময়ে ব্যথা হলে তা ফুসফুসের ক্যান্সারের একটি উপসর্গ। ব্যথাটা যদি সবসময় থাকে তবে সেখানে টিউমারের উপস্থিতি থাকতে পারে।
 
# কাশির সাথে রক্ত যাওয়া
কাশি বা কফের সাথে রক্ত যাওয়াটা মোটেই ভালো লক্ষণ নয়। লাং ক্যান্সারের অন্যান্য উপসর্গের সাথে সাধারণত এই লক্ষণটি দেখা যায়।
 
# ক্লান্ত বা দূর্বল অনুভূতি
অনেক কারণেই ক্লান্তি লাগতে পারে। কিন্তু হঠাৎ করেই ক্লান্তি লাগা, অফিস বা বাসার কাজ করতে কষ্ট হওয়াটা খারাপ কিছুর লক্ষণ এবং তা হতে পারে ক্যান্সারের লক্ষণ। ক্যান্সার শরীরে বাসা বাঁধলে তা শরীরের শক্তি শুষে নিতে শুরু করে এবং আপনাকে সহজেই ক্লান্ত করে দেয়।
 
# বারবার রোগ হওয়া
বারবার নিউমোনিয়া এবং ব্রঙ্কাইটিস হতে পারে ফুসফুসের ইনফ্লামেশনের ফলে। এর জন্য ডাক্তারের লাং ক্যান্সারের টেস্ট করা জরুরী। সূত্র: হাফিংটন পোস্ট

ঢাকা, মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // ই নি এই লেখাটি ২৪০ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন